ঢাকা | মে ২৭, ২০২৪ - ১২:২০ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম

ভিলারিয়ালের বিপক্ষে ৭ গোলের রোমাঞ্চকর ম্যাচে জয় বার্সার

  • আপডেট: Saturday, August 26, 2023 - 8:08 am
  • পঠিত হয়েছে: 85 বার

টাচ নিউজ ডেস্ক : স্প্যানিশ লা লিগায় রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে ভিয়ারিয়ালকে হারিয়ে টানা দ্বিতীয় জয় পেয়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বার্সেলোনা। ম্যাচের শুরুর দিকেই জোড়া গোলে এগিয়ে যায় ন্যূ ক্যাম্পের দলটি। এরপর প্রথমার্ধেই সমতা ফেরানোর পর দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে আবারো এগিয়েও গেল ভিয়ারিয়াল। একের পর এক আক্রমণে আবার জোড়া গোল করে প্রথম ম্যাচে ড্র’র পর টানা দ্বিতীয় জয় তুলে নিলো বার্সেলোনা।
ভিয়ারিয়ালের মাঠে ৪-৩ গোলে জিতেছে জাভি হার্নান্দেজের দল। গাভি ও ফ্রেংকি ডি ইয়ংয়ের গোলে প্রথম ১৫ মিনিটেই ২-০ গোলে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। জুয়ান ফয়েথ, আলেকজান্ডার সরলথ ও আলেক্স বায়েনার গোলে এক পর্যায়ে ৩-২ গোলে এগিয়ে যায় ভিয়ারিয়াল। বদলি নেমে ফেরান টরেস সমতা ফেরানোর পর রবার্ট লেভানোদোভস্কির গোলে ৩ পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ে লা লিগার শিরোপাধারীরা।

শুরু থেকে জমে ওঠা ম্যাচে প্রথম মিনিটেই সুযোগ পেয়ে যান ইলকাই গিনদোয়ান। কিন্তু ভারসাম্য হারিয়ে উঁচু করে বাড়ানো বলে ঠিকমতো হেড নিতে পারেননি এই জার্মান মিডফিল্ডার। চার মিনিট পর বার্সেলোনার জালে এতিয়েন কাপু বল পাঠালেও অফসাইডের কারণে রেফারি বাতিল করেন।

অনেকটা খেলার ধারার বিপরীতেই ১২ মিনিটে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। কর্নারের পর বল পেয়ে দূরের পোস্টে ক্রস বাড়ান ইয়ামাল। একটু সামনে থাকা গাভি দারুণ হেডে খুঁজে নেন জাল। এই গোলে অবদান রেখে একটি জায়গায় আনসু ফাতিকে পেছনে ফেলে দিলেন ইয়ামাল। ২১ শতকে বার্সেলোনার হয়ে লা লিগায় সবচেয়ে কম বয়সে অ্যাসিস্টের রেকর্ড এখন তার। ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে ভালেন্সিয়ার বিপক্ষে ১৬ বছর ৩১৮ দিন বয়সে গোলে অবদান রেখেছিলেন ফাতি। ইয়ামাল অ্যাসিস্ট করলেন ১৬ বছর ৪৫ দিন বয়সে।

তিন মিনিট পর ব্যবধান দ্বিগুণ করেন ডি ইয়ং। ডি-বক্সের ভেতরে শট করার জন্য জায়গা খুঁজছিলেন লেভানোদোভস্কি। তাকে ঠেকাতে গিয়ে ফাঁকায় থাকা ডি ইয়ংকে বল দিয়ে বসেন ভিয়ারিয়াল ডিফেন্ডার আলফন্সো পেদরাসা। পেনাল্টি স্পটের কাছ থেকে কাছের পোস্ট ঘেঁষে অনায়াসে ঠিকানা খুঁজে নেন ডাচ মিডফিল্ডার।

২৬ মিনিটে দারুণ হেডে জাল খুঁজে নেন আর্জেন্টাইন ডিফেন্ডার ফয়েথ। পোস্টে লেগে ভেতরে ঢোকা বল ঠেকানোর কোনো সুযোগই ছিল না বার্সেলোনা গোলরক্ষকের। ৪০ মিনিটে দারুণ প্রতি-আক্রমণে বার্সেলোনার জালে বল পাঠান সরলথ। ৫০ মিনিটে চমৎকার এক আক্রমণে এগিয়ে যায় ভিয়ারিয়াল। পেদরাসার বাড়ানো বল ধরে বাঁকানো শটে দূরের পোস্ট দিয়ে ঠিকানা খুঁজে নেন আলেক্স বায়েনা।

ভিয়ারিয়ালের রক্ষণে প্রবল চাপ তৈরি করা বার্সেলোনা সমতা ফেরায় ৬৮ মিনিটে। ফেরান টরেসের বাম পায়ের শট ব্লকড হলে ফিরতি বলে ডান পায়ের শট জড়ায় জালে। চার মিনিট পর এগিয়েও যায় জাভির দল। ইয়ামালের শট গোলরক্ষরের গ্লাভস ছুঁয়ে পোস্টে লাগলে পেয়ে যান অরক্ষিত লেভানোদোভস্কি। ফাঁকা জালে অনায়াসেই বল পাঠান তিনি। চলতি আসরে এটাই পোলিশ স্ট্রাইকারের প্রথম গোল।

৩ ম্যাচে ৭ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের তিনে অবস্থান করছে বার্সেলোনা। গোল পার্থক্যে এগিয়ে থেকে দুইয়ে জিরোনা। টানা তিন জয়ে ৯ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রিয়াল মাদ্রিদ।