ঢাকা | মে ২৮, ২০২৪ - ১০:১২ অপরাহ্ন

শিরোনাম

মোংলায় হামলায় আহত নারী মামলার আসামীর ওসির বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

  • আপডেট: Thursday, August 10, 2023 - 2:03 pm
  • পঠিত হয়েছে: 194 বার

নিজস্ব প্রতিবেদক: হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরে জানতে পারে হামলার শিকার নারী ওই হামলার ঘটনায় দায়েরকৃত মিথ্যা মামলার আসামী। স্থানীয় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) সহযোগীতায় দখল নেয় বাড়ি।

বাগেরহাটের মোংলা উপজেলায় এমন ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী নারী। গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ভিক্টিম নারী এ অভিযোগ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে ওই নারী বলেন, গত ৬মে মোংলার সন্ত্রাসী, মাদক ব্যবসায়ী, ভূমি দস্যু টাইগার জলিলের নেতৃত্বে একদল স্থানীয় সন্ত্রাসী ভিক্টিম শামীমা ইয়াসমিনের বাসায় হামলা চালায়। এসময় বসতঘরে ঢুকে শামিমা ইয়াসমিনকে মারপিট করে ও কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। এসময় সন্ত্রাসী হামলায় বাসায় থাকা গৃহকর্মী বাতাসি বেগম ও ৪ বছরের শিশু আরিফও আহত হয়। এঘটনায় ভুক্তভোগী মোংলা থানায় মামলা করতে গেলে ওসি তালবাহানা করে। পরবর্তিতে ৭ মে’ এঘটনায় মামলা নেয় পুলিশ। তবে আজও মোংলা থানা পুলিশ আসামী গ্রেফতারের কোন চেষ্টা করেননি ।

মারধরের শিকার শামিমা ইয়াসমিনকে খুলনা ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়। পরে তিনি বিপদমুক্ত হলে এবং তার অবস্থার কিছুটা উন্নতি হলে তাকে বাড়ীতে নিয়ে আসা হয়। এর ৬ দিন পর মোংলা থানার ওসি শামসুদ্দিনের নির্দেশে একদল পুলিশ ভুক্তভোগীর বাড়ীর গেটে এসে গেট ধাক্কা দিয়ে খুলে ফেলে এবং তাকে ঘর থেকে টেনে বের করে দেয় এবং ভুমিদস্যুদের দখল নিয়ে দেয়।

পরবর্তিতে ভুক্তভোগী নারী স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী, আইজিপি, খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি ও পুলিশ সুপার বাগেরহাট বরাবর অভিযোগ দেন। অভিযোগ দায়ের করার কারণে টাইগার জলিল ও ওসি শামসুদ্দিন ক্ষিপ্ত হয়ে ভুক্তভোগীকে শায়েস্তা করার হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। তাই নিরাপত্তা ও ন্যায় বিচারের জন্য ভুক্তভোগী প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।