টাচ নিউজ ডেস্কঃ আসন্ন জাতীয় নির্বাচন নিয়ে কেউ কোনো কূটকৌশল করতে পারবে না বলে মনে করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল। আগামী নির্বাচন স্বচ্ছ হতে হবে উল্লেখ করে সিইসি বলেন, ‘যদি নির্বাচনকে আড়াল করার জন্য কেউ ব্ল্যাক আউট করেন, তবে আমাদের পক্ষ থেকে স্পষ্ট বক্তব্য থাকবে, সেটা সহ্য করা হবে না। আমার এবং আমার সহকর্মীদের অতটুকু সাহস রয়েছে।’

বৃহস্পতিবার (৯ জুন) রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে স্থানীয় পর্যবেক্ষকদের সঙ্গে আয়োজিত সংলাপের সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সিইসি বলেন, ‘ভোটারদের সচেতন করতে হবে। আমার ভোট আমি দেব, এমন উদ্ভাবনী বাক্য দিয়ে যদি ভোটারদের সচেতন করতে পারি, পর্যবেক্ষকদেরও ভোটারদের সচেতন করার ভূমিকা রাখতে হবে।’

পর্যবেক্ষকদের এক প্রশ্নের জবাবে কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেন, ‘ইন্টারনেট ব্ল্যাক আউট নির্বাচনের সময় কেন করা হয়, কী কারণে করা হয়–এটা হয়ে থাকতে পারে ওই সময়ে। কিন্তু আমরা চেষ্টা করব যে নির্বাচনকে অস্বচ্ছ করার জন্যই যদি ইন্টারনেট ব্ল্যাক আউট করা হয়, আমরা নির্বাচনটাকেই ব্ল্যাক আউট করে দিতে পারি। হয়তো আমাদের এমন পদক্ষেপ নিতে হতে পারে, আমরা কিন্তু নির্বাচনটাকেই ব্ল্যাক আউট করে দেব। কারণ, আমরা কিন্তু স্পষ্ট করে বলতে চাচ্ছি, নির্বাচন স্বচ্ছ হতে হবে। নির্বাচন নিয়ে কোনো কূটকৌশল কেউ করতে পারবেন না।’

ইভিএম ব্যবহার প্রসঙ্গে সিইসি বলেন, ইভিএম খুবই সুবিধাজনক একটি জিনিস। ভোটের দিন, ভোটের সময় সহিংসতা হয়। ভোটকেন্দ্রে যে সহিংসতা হয়, তা নিয়ন্ত্রণ করা অনেক সময় কঠিন হয়ে পড়ে। কিন্তু ইভিএম ব্যবহার করে নির্বাচন কেন্দ্রগুলোকে সহিংসতা থেকে কিছুটা অহিংস করে তোলা সম্ভব। কারণ, সেখানে গিয়ে কেউ ১০টি ভোট দিতে পারবে না। কেউ ৫০টি ব্যালট ছিনতাই করে ভোট দিতে পারবে না। সেখানে আগে আইডেন্টিফায়েড হতে হবে, পরে বায়োমেট্রিক মিলতে হবে।

নির্বাচন কমিশন গত মার্চ মাস থেকে বিভিন্ন মহলের সঙ্গে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতির অংশ হিসেবে সংলাপ করছে। গত ১৩ ও ২২ মার্চ এবং ৬ ও ১৮ এপ্রিল যথাক্রমে দেশের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ-বুদ্ধিজীবী ও নাগরিক সমাজ এবং প্রিন্ট মিডিয়ার সম্পাদক বা সিনিয়র সাংবাদিক ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার প্রধান নির্বাহী বা প্রধান বার্তা সম্পাদক বা সিনিয়র সাংবাদিকদের সংলাপ করেছে ইসি। নিবন্ধিত ১১৮টি পর্যবেক্ষক সংস্থার মধ্যে ৩২টিকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিল ইসি। যার মধ্যে ২০ জন পর্যবেক্ষক সংলাপে অংশ নিয়েছেন।

সংলাপে চার নির্বাচন কমিশনার, ইসি সচিবসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে