টাচ নিউজ ডেস্কঃ ঈদের আগে হঠাৎ বাড়তে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম। এক সপ্তাহের ব্যবধানে রান্নার গুরুত্বপূর্ণ এ অনুষঙ্গটির দাম বেড়েছে কেজিতে ৮ থেকে ১০ টাকা। গত সপ্তাহে যে পেঁয়াজ ২৫ টাকা কেজি বিক্রি হয়েছে, এখন খুচরা বাজারে তা বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৩৫ টাকা।

সোমবার (২৫ এপ্রিল) রাজধানীর খিলগাঁও, মুগদা, বাড্ডা ও কারওয়ার বাজার এলাকায় ঘুরে ক্রেতা-বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

খিলগাঁও কাচাবাজারে পেঁয়াজ কিনতে আসা আলমগীর হোসেন জানান, গত সপ্তাহে দুই কেজি পেঁয়াজ কিনেছিলাম ৫০ টাকা দিয়ে। কেজি পড়েছে ২৫ টাকা। আজকে কেজি চাচ্ছে ৩৫ টাকা। এমন কী সমস্যা হলো যে হঠাৎ করেই ১০ টাকা বেড়ে গেল? দুই-তিন দোকান ঘুরে দুই কেজি কিনলাম ৬৫ টাকা নিল।

মুগদায় রাস্তায় ভ্যানে পেঁয়াজ বিক্রি করছে মোবারক। তিনি জানান, চারদিন আগেও ঘাটে (পাইকারি বাজারে) পেঁয়াজের কেজি খরচসহ ২১ থেকে ২২ টাকা পরতো। এনে ২৫/২৬ টাকায় বিক্রি করেছি। এখন খরচসহ ২৮ টাকার ওপরে কেনা পড়ে। হঠাৎ দাম বাড়ায় বিক্রি কম। তাই ৩০ টাকায় বিক্রি করছি। কিন্তু ৩০ টাকায় বিক্রি করলে এখন লাভ থাকে না। কারণ কাঁচামাল অনেক ঘাটতি হয়ে যায়।

পেঁয়াজের বাজার একটু চড়া বলছেন কারওয়ান বাজারের পেঁয়াজ বিক্রেতা আশরাফ। তিনি ঢাকা পোস্টকে জানান, গত তিন চারদিন ধরে পেঁয়াজের বাজার বাড়তির দিকে। আজকে পেঁয়াজ খুচরা দেশি ৩২ টাকা আর হাইব্রিড ৩০ টাকায় বিক্রি করছি। দাম বাড়ার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা পাইকারারদের কাছ থেকে কিনে বিক্রি করি। তারা দাম বাড়িয়েছে, বলছে সরবরাহ কম।

পাইকারিবাজার ও আড়তে দাম বাড়ার বিষয়টি স্বীকার করে রাজধানীর শ্যামবাজারের পেঁয়াজ ব্যবসায়ীদের নেতা মেসার্স আলী ট্রেডার্সের পরিচালক মো. শামসুর রহমান ঢাকা পোস্টকে বলেন, কাঁচামাল সরবরাহ কম থাকলে দাম বাড়ে। বেশি থাকলে দাম কমে। গত কয়েকদিন সরবরাহ কম ছিল তাই বাজার এখন বাড়তি। আজকে পেঁয়াজ ২৫ থেকে ২৬ টাকায় পাইকারি বিক্রি হচ্ছে। সরবরাহ বাড়লে দাম কমে যাবে।

জাতীয় সংসদে কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশে বছরে ৩৩ লাখ মেট্রিক টন পেঁয়াজের চাহিদা রয়েছে। এরমধ্যে ২৩ দশমিক ৩০ লাখ মেট্রিক টন পেঁয়াজ দেশে উৎপাদন হয়। ঘাটতিতে থাকা বাকি পেঁয়াজ আমদানি করতে হয়।

এদিকে বিভিন্ন জেলা থেকে পাওয়া তথ্য বলছে, এবার আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় পেঁয়াজের ফলন ভালো হয়েছে। তাই হঠাৎ দাম বাড়ার কোনো কারণ নেই বলছেন খাত সংশ্লিষ্টরা।

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার ঢাকা পোস্টকে বলেন, আমরা যতটুকু জেনেছি এবার পেঁয়াজের ফলন ভালো হয়েছে। তারপরও হঠাৎ দাম কেন বাড়ছে বিষয়টি দেখতে আমাদের তদারকি টিম মাঠে যাবে। কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের এসব পণ্যের দাম নির্ধারণ করে দেয়। যদি কেউ সরবরাহর কথা বলে নিয়মবহির্ভূতভাবে দাম বাড়িয়ে থাকে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে