টাচ নিউজ ডেস্কঃ দক্ষিণ এশিয়ার দেশ ভারতের উত্তরপ্রদেশ রাজ্যের হারদুই অঞ্চলে গুলিভর্তি একটি বন্দুক নিয়ে ছবি তুলতে চেয়েছিলেন এক নারী। আর এমন দুঃসাহস দেখানোর জন্য জীবন দিয়ে মূল্য চোকাতে হলো তাকে।

ভারতীয় মিডিয়া দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে জানানো হয়, সদ্য প্রাণ হারানো সেই নারীর নাম রাধিকা গুপ্তা। তিনি উত্তরপ্রদেশ রাজ্যের লখনৌ জেলার হারদুই অঞ্চলের বাসিন্দা। থুতনিতে গুলিভর্তি বন্দুক ঠেকিয়ে সেলফি তুলতে চেয়েছিলেন তিনি। অসাবধানতাবশত ট্রিগারে চাপ পড়ে যাওয়ায় আর শেষ রক্ষা হয়নি তার। বন্দুক থেকে গুলি ছিটকে গিয়ে ওই নারীর মাথার খুলি উড়িয়ে দেয়। কিন্তু ছবি তোলার সময় আচমকা গুলি চলল কী করে, তা ভেবে পাচ্ছেন না পুলিশ সদস্যরাও।

মিডিয়াগুলো বলছে, উত্তরপ্রদেশ রাজ্যে বন্দুক সঙ্গে নিয়ে এভাবে ছবি তোলার বিষয়টি এবারই নতুন কিছু নয়। সেখানে সাধারণত বিয়ের অনুষ্ঠানে অনেকেই প্রকাশ্যে গুলি চালান। আবার কখনো শখের বশে অনেকেই বন্দুক হাতে ছবিও তোলেন। ভারতের অন্যান্য স্থানে না হলেও বন্দুক জিনিসটা উত্তরপ্রদেশে সাধারণ একটি ব্যাপার।

আর সেই নারীও তাই বন্দুক হাতে নিয়ে ছবি তুলে রাখতে চেয়েছিলেন। কিন্তু বন্দুক হাতে ছবি তুলতে গিয়ে এমন বিপদ ঘটবে কে জানত! গুলিভর্তি বন্দুক নিয়ে সেলফি তুলতে গিয়ে নিহত হন সেই নারী।

ভারতীয় মিডিয়া সিএনএন নিউজ-১৮ বলছে, নিহত ওই নারী সেলফি তুলতে চেয়েছিলেন। বন্দুকের কার্তুজ তিনি বের করে রাখেননি। গুলিভর্তি বন্দুকটি তিনি এক হাতে তুলে নেন। তারপর বন্দুকের নল রাখেন থুতনিতে। ঘটনার এক পর্যায়ে অসাবধানতাবশত গুলি বেরিয়ে সোজা লাগে তার থুতনিতে। আর এতেই খুলি উড়ে যায় তার।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে