সিলেটের শাহপরান এলাকা থেকে বিপুল পরিমাণ মাদকসহ চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী, জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টি সিলেট বিভাগীয় (যুগ্ন-সাংগঠনিক সম্পাদক) ও জেলা স্বেচ্ছাসেবক পার্টি সভাপতি, কথিত সাংবাদিক আবুল কালাম তপাদার (৩৮) এবং তার সহযোগী মিঠুন কুমার দাস (২০) কে গ্রেফতার করে র‌্যাব-৯।

এসময় তাদের কাছ থেকে দেড় হাজারের অধিক পিস ইয়াবা জব্দ করা হয়েছে।

গত শুক্রবার (৬ আগষ্ট) রাতে শাহপরান থানাধীন সাদিপুর-২ এর নয়াগাঁও এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয় তাদেরকে। আটককৃত আবুল কালাম তপাদার সিলেটের জকিগন্জ থানার শাহিদাবাদ গ্রামের মৃত আব্দুস সোবহান তপাদারের পুত্র ও মিঠুন কুমার দাস একই থানার আমুরশীদ গ্রামের তপন কুমার দাসের পুত্র।

গ্রেফতার হওয়া আবুল কালাম তপাদারের ফেসবুক আইডি ঘুরে দেখা যায় তিনি জাতীয় পার্টি (কাদের-বাবলু) গ্রুপের নেতৃত্বাধীন অঙ্গ সংগঠন জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টি’র সিলেট বিভাগীয় যুগ্ন সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা কমিটির সভাপতি এবং কথিত দৈনিক স্বদেশ প্রতিদিন নামক একটি পত্রিকার সিলেট প্রতিনিধি হিসেবে পরিচয় দিয়ে আসছিলেন।

র‌্যাব জানায়, শুক্রবার রাত সোয়া ৭ টার দিকে র‌্যাব-৯ এর সদর কোম্পানি (সদর ক্যাম্প, সিলেট)-এর একটি দল শাহপরাণ থানাধীন সাদিপুর-২ এলাকার বোরহান উদ্দিন মাজার রোডের মাদার শেড ভিলার ২য় তলার দক্ষিণ পাশের ফ্ল্যাটে অভিযান চালিয়ে মাদক ব্যবসায়ী আবুল কালাম তপাদার ও মিঠুন কুমার দাসকে গ্রেফতার করতে সমর্থ হয় র‌্যাব। এ সময় জব্দ করা হয় তাদের কাছ থেকে ১ হাজার ৫ শ ৪৪ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট ।

জানা যায়, আবুল কালাম তপাদার দীর্ঘদিন যাবত সিলেটে মাদক ব্যবসা করে আসছে। বিভিন্ন ইলেকট্রনিক্স ডিভাইসের ভেতরে লুকিয়ে মাদকদ্রব্য এক স্থান থেকে অন্য স্থানে পাঠান। কালামের এমন গোপন কৌশলের ফাঁদে পা দিয়ে অনেক নিরীহ লোক আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে গ্রেফতার হয়ে এখন কারাগারে। নির্বিঘ্নে মাদক ব্যবসা চালাতে কালাম নিজেকে কখনো সাংবাদিক ও কখনো আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যসহ বিভিন্ন সময় বিভিন্ন পরিচয় দিয়ে নিজের কুকীর্তি আড়াল করতেন।গ্রেফতার অভিযানে নেতৃত্ব দেন র‌্যাব-৯ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল আবু মুসা মো. শরীফুল ইসলাম (পিএসসি, এএসসি), মেজর মাহফুজুর রহমান ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সামিউল আলম।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে