টাচ নিউজ ডেস্কঃ পবিত্র রমজান মাসে সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক) কর্তক মাংসের দাম নির্ধারণ করে দেওয়ায় আন্দোলনে যাচ্ছেন মাংস ব্যবসায়ীরা।

বৃহস্পতিবার (৭ এপ্রিল) থেকে তারা গরু ও ছাগলের মাংস বন্ধ রেখে আন্দোলন করবেন, এমনটি ঘোষণা দিয়েছেন। যতদিন তাদের দাবি না মানা হবে, ততদিন গরু-ছাগলের মাংস বিক্রি করবেন না বলে ঘোষণা দিয়েছেন তারা।

বুধবার (৬ এপ্রিল) দিনগত রাত ১টার দিকে এক জরুরি বৈঠক শেষে সিলেট মহানগর মাংস ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির নেতারা এ ঘোষণা দেন।

সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল খালিক বলেন, মহানগর এলাকায় সিলেট সিটি করপোরেশন কর্তৃক গরুর মাংস ৬০০ ও ছাগলের মাংস ৮৫০ টাকা নির্ধারিত করে দিয়েছেন। এর চেয়ে বেশি দাম রাখলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জেল-জরিমানা করা হবে। কিন্তু আমরা গরু-ছাগল যে, দরে কিনে আনি, তাতে মাংস বিক্রি করে আমাদের লাভ হয় না। কোনো মতে, পুঁজি তোলার চেষ্টা করি। আর সিসিকের বেঁধে দেওয়া দামে মাংস বিক্রি করলে লোকসান দিতে হবে।

তিনি বলেন, সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর কাছে গত এক মাস থেকে আমরা গরু-ছাগলের মাংসের দাম বাড়ানোর দাবি জানিয়ে আসছি। সর্বশেষ সিসিক কর্তৃক ধার্যকৃত দামে গরুর মাংস ৬০০ এবং খাসির মাংস ৮৫০ টাকাতে রাখা হয়েছে। এ কারণে বাধ্য হয়ে বৃহস্পতিবার থেকে গরু ও ছাগলের মাংস বিক্রি অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দিতে হচ্ছে।

সিলেটের মিরাবাজারের মাংস ব্যবসায়ী নেতা আরিফ মিয়া বলেন, ‘আমরা সিলেটে বেশি টাকা দিয়ে গরু কিনতে হয়। সিলেটের বাইরের তুলনায় অনেক বেশি দাম। আর গরু-ছাগল বাইরে থেকে কিনে আনতে হয়। এ কারণে পরিবহন খরচসহ পশুর দাম বেশি পড়ে। মাংসের দর সারাদেশে এক দাম করে দেওয়ার জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানান তারা।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে