টাচ নিউজ ডেস্ক: ‘সিএন্ডএফ এজেন্ট লাইন্সেস বিধিমালা-২০২০’কে বাণিজ্য বিরোধী দাবি করে তা সংশোধনের দাবি জানিয়েছে ফেডারেশন অব বাংলাদেশ কাস্টমস্ ক্লিায়ারিং এন্ড ফরওয়াডিং এজেন্টস্ এসোসিয়েশন। একই সাথে সারাদেশে সিএন্ডএফ এজেন্টদের বিল অব এন্ট্রির মাধ্যমে শতভাগ মূসক (ভ্যাট) অগ্রিম প্রদান করে বিধায় মাসিক রির্টান প্রদান থেকে অব্যাহতি প্রদানের দাবি জানানো হয়েছে।

গতকাল ফেডারেশন অব বাংলাদেশ কাস্টমস্ ক্লিয়ারিং এন্ড ফরওয়ার্ডিং এজেন্টস্ এসোসিয়েশন নিউ বেইলী রোডস্থ নিজস্ব কার্যালয়ে উপরোক্ত বিষয়ে কেন্দ্রিয় কার্যনির্বাহী পরিষদের এক জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত সভায় ফেডারেশন অব বাংলাদেশ কাস্টমস ক্লিয়ারিং এন্ড ফরওয়ার্ডিং এজেন্টস এসোসিয়েশনের আওতাধীন সকল কাস্টম হাউস, কাস্টমস স্টেশন ও স্থল বন্দর সমূহে কর্মরত সমগ্র বাংলাদেশের সিএন্ডএফ এজেন্টবৃন্দের প্রতিনিধি ও নেতৃবৃন্দেরা অংশগ্রহণ করেন।

এই সভায় সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত গৃহিত হয় যে, আগামী ২১ ডিসেম্বর তারিখের পূর্বে তাদের দাবী সমূহ বাস্তবায়নের বিষয়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড কর্তৃপক্ষ কর্তৃক উল্লেখিত মৌলিক অধিকার পরিপন্থি ও নির্বতনমূলক আইন সংশোধন করা না হলে, সারা বাংলাদেশের সিএন্ডএফ এজেন্টগণের মৌলিক অধিকার ও মান মর্যাদা প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি বা কর্মবিরতি পালন করবে।

এবং তার দায় ফেডারেশন অব বাংলদেশে কাস্টমস্ ক্লিয়ারিং এন্ড ফরওয়ার্ডিং এজেন্টস এসোসিয়েশনের উপর বর্তাবে না।

এ সভায় উপস্থিত ছিলেন, ফেডারেশন অব বাংলাদেশ কাস্টমস্ ক্লিয়ারিং এন্ড ফরওয়ার্ডিং এজেন্টস এসোসিয়েশনের সভাপতি আলহাজ্ব মফিজুর রহমান সজন, মহাসচিব জনাব মোঃ সুলতান হোসেন খান, অর্থ সচিব এ কে এম আকতার হোসেন, সাংগঠনিক ও প্রচার সম্পাদক জনাব শেখ লিয়াকত হোসেন, বন্দর বিষয়ক সচিব জনাব মোঃ খায়রুল বাশার, আর্ন্তজাতিক বিষয়ক সচিব জনাব মোঃ আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চুসহ সারা বাংলাদেশের সিএন্ডএফ এজেন্টস এসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে