গোলাম কিবরীয়া: সারাদিন বৈরী আবহাওয়া ও ঘনঘন বৃষ্টিতে জনজীবনে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। দিনমজুর ও স্বল্পআয়ের লোকজন ভীড় করছে চায়ের দোকানে। এ যেন অনিচ্ছায় ছুটির দিন।

তারপরও থেমে নেই অনেকের পথচলা।সামান্য কিছু আয়ের জন্য ছুটে চলছে কৃষক,দিনমজুর,রিক্সাওয়ালা। সারাদিন ঠিলেঠালাভাবে চলছে স্কুল কলেজ ও সরকারি প্রতিষ্ঠান সমুহ।

বাড়িতে বাড়িতে চলছে খিচুড়ি আর যার যার সামর্থ অনুযায়ী ইলিশ মাছ,মাংস অথবা ডিম এর আয়োজন। কেউ কেউ চায়ের দোকানে তুলছে আলাপের ঝড়।সব মিলিয়ে জনমনে চলছে অলস সময়ে গল্প আর খাওয়ার ধুম।

বৈরি আবহাওয়ার কারণে স্কুলের শিক্ষার্থীদের অনেককেই বৃষ্টিতে ভিজেই বাড়িতে যেতে হচ্ছে।

এই বৈরী আবহাওয়া ও ঘনঘন বৃষ্টির দরুন ধামরাইয়ের বংশী নদীসহ,খাল ও বীলের পানি বেড়েছে।জেলে ও মাছ চাষি যারা বীলে বা হাওরে মাছ চায করে তাদের বাড়তি ঝামেলা পোহাতে হচ্ছে। হঠাৎ বৃষ্টির কারনে পানি বেড়েছে তাই জাল দিয়ে বেড়া দিয়ে মাছ আটকে রাখার কাজ করছে।

সব রকম দূর্ভোগ আর কষ্টের পরও মানুষ বৃষ্টিকেই ভালোবাসে চায় প্রিয়জনের সান্নিধ্য।তাইতো কবি, সাহিত্যিক, গায়ক এই বৃষ্টিকে নিয়ে অনেক গুনগান করে গেছেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে