টাচ নিউজ ডেস্কঃ স্বামীর সঙ্গে প্রতিদিনের মতো কর্মস্থল কারখানায় যাচ্ছিলেন রত্না বেগম। কিন্তু আজকেরই ছিল তার শেষ যাওয়া। স্বামীর চোখের সামনে বাস ও ট্রাকের মাঝে চাপা পড়ে করুণ মৃত্যু হয়েছে রত্নার।

মঙ্গলবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) ভোর সাড়ে ৭টার দিকে নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়কের পুরাতন ইপিজেডের সামনে মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে। পরে মুমূর্ষু অবস্থায় স্ত্রীকে নিয়ে মো. সাদেকুল ইসলাম ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। দুপুর ১টার দিকে রত্মার মৃত্যু হয়। স্বামী সাদেকুল ইসলাম এ সব তথ্য জানিয়েছেন।

রত্মা বেগম ছেলেকে নিয়ে স্বামী সাদেকুল ইসলামের সঙ্গে আশুলিয়ার ভাদাইল এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকতেন। তিনি পুরাতন ইপিজেডের পোশাক কারখানার শ্রমিক। তার স্বামী সাদেকুলও আশুলিয়ার চক্রবর্তী এলাকার আরেকটি পোশাক কারখানায় কর্মরত। তাদের গ্রামের বাড়ি গাইবান্ধা জেলায়।

সাদেকুল ইসলাম বলেন, ‘ভোর সাড়ে ৭টার দিকে দুজনে পুরাতন ইপিজেডের সামনে রাস্তা পার হচ্ছিলাম। হঠাৎ একটি ট্রাক ও বাসের মাঝে আটকা পড়ে গুরুতর আহত হয় রত্না। ততক্ষণে যানবাহন দুটি দ্রুত সেখান থেকে চলে যায়। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় রত্নাকে নিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করি। দুপুর ১টার দিকে তার মৃত্যু হয়।’

সাভার হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতিকুর রহমান বলেন, বাস ও ট্রাকের মাঝে চাপা পড়ে কোনো নারীর মৃত্যুর বিষয়টি তাদের জানা নেই।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে