টাচ নিউজ ডেস্ক: গ্রেনেড হামলা দিবস উপলক্ষ্যে বর্বোরচিত নৃশংস গ্রেনেড হামলায় নিহত স্বেচ্ছাসেবক লীগ কেন্দ্রীয় নেতা কুদ্দুস পাটোয়ারী  সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছে কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগ। এসময় প্রায় ৫ শতাধিক অসহায় দুস্থ মানুষের মাঝে কাপড়, লুঙ্গি ও খাবার বিতরণ করা হয়।

পরে দাউদকান্দিতে বেলা সাড়ে ১১ টায় কুমিল্লা উত্তর জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ আয়োজিত পথসভায় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সভাপতি জননেতা নির্মল রঞ্জন গুহ ও সাধারণ সম্পাদক জননেতা আফজালুর রহমান বাবু, সহ সভাপতি সালেহ মোহাম্মদ টুটুল।

এছাড়াও   বেলা ১ টায় মতলব উত্তর শ্রীরার চরে এবং বেলা ২ টায় মতলব দক্ষিণ টোল প্লাজায় অনুষ্ঠিত পথসভায় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সভাপতি জননেতা নির্মল রঞ্জন গুহ ও সাধারণ সম্পাদক জননেতা আফজালুর রহমান বাবু, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক উপ কমিটির সদস্য জননেতা নির্মল গোস্বামী, উপজেলা চেয়ারম্যান কবির আহমেদ ও পৌর মেয়র আওলাদ হোসেন লিটন।

আগস্টের শহীদদের স্মরনে আয়োজিত সভায় বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি জননেতা নির্মল রঞ্জন গুহ বলেন, স্বাধীনতার পরাজিত শত্রু, ১৫ আগস্টের ঘাতক আর ২১ শে আগস্টের খুনিচক্র এক ও অভিন্ন। ঘাতকচক্র ২১ বার শেখ হাসিনাকে হত্যার চেষ্টা করেছিলো। আওয়ামী লীগকে নেতৃত্বশূন্য করতে বিএনপি জামাত জোট সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় তারেক জিয়া, তৎকালীন স্ব- রাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর, হারিছ চৌধুরী, উপ মন্ত্রী আব্দুস সালাম পিন্টু, জামাত নেতা আলী আহসান মুজাহিদ, জঙ্গি নেতা মুফতি হান্নান, মাওলানা তাজ উদ্দিন গংদের পরিকল্পনায় ২০০৪ সালের ২১ শে আগস্টে জননেত্রী শেখ হাসিনা সহ আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাদের হত্যার উদ্দেশ্যে বর্বোরচিত নৃশংস গ্রেনেড হামলা চালিয়ে ২৪ জন নেতাকর্মীকে নির্মম ভাবে হত্যা করেছে। অসংখ্য নেতাকর্মী গ্রেনেডের স্লিন্টারে গুরুতর আহত হয়ে অসহ্য যন্ত্রণা নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে! অনেকেই চিরতরে পঙ্গু হয়ে গিয়েছেন। জীবন দিয়েছেন স্বেচ্ছাসেবক লীগ কেন্দ্রীয় নেতা কুদ্দুস পাটোয়ারী। রক্তাক্ত ক্ষতবিক্ষত হয়ে মৃত্যুর দুয়ার থেকে ফিরে এসেছেন জননেতা কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম সহ অসংখ্য নেতাকর্মী।

তিনি বলেন, স্বেচ্ছাসেবক লীগের অনেক নেতাকর্মী সেদিন আহত হয়ে ঘাতক স্লিন্টারের ভয়াবহ যন্ত্রণা ভয়ে বেড়াচ্ছেন। আমি  দ্রুততম সময়ের মধ্যে ২১শে আগস্টের গ্রেনেড হামলায় জড়িত অপরাধীদের দন্ড কার্যকরের দাবী জানাচ্ছি।

এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্যকালে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক জননেতা আফজালুর রহমান বাবু বলেন, ঘাতকচক্র  প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে ২১ বার হত্যার চেষ্টা করেছিলো! মহান রাব্বুল আলামিনের অশেষ রহমতে তিনি বেঁচে আছেন। শেখ হাসিনা বেঁচে আছেন বলেই বাংলাদেশে আজ আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে! আমরা খুনিচক্রের বিচারের দাবী করতে পারছি। জননেত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আছেন বলেই বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার হয়েছে! মানবতাবিরোধী অপরাধীদের বিচার হয়েছে। তিনি ২১ শে আগস্ট ভয়াবহ গ্রেনেড হামলার ঘটনার নেপথ্যে জড়িত কুশীলবদেরও বিচারের আওতায় আনার দাবী জানান। জননেত্রী শেখ হাসিনার সুদৃঢ় নেতৃত্বে বাংলাদেশ থেকে চিরতরে উগ্র সাম্প্রদায়িক জঙ্গিবাদ নির্মূল করা হবে। বঙ্গবন্ধু, বাংলাদেশও জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রশ্নে স্বেচ্ছাসেবক লীগ যেকোনো ঝুঁকি নিতে প্রস্তুত।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে