টাচ নিউজ ডেস্ক: পরিবহন চাঁদাবাজি নিয়ে অনুসন্ধানী প্রতিবেদনের জন্য প্রিন্ট ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পেয়েছেন যুগান্তরের সিনিয়র রিপোর্টার সিরাজুল ইসলাম।

দুদক বিটে কর্মরত সাংবাদিকদের সংগঠন রিপোর্টার্স অ্যাগেনেইস্ট করাপশন (র‌্যাক) তিনটি ক্যাটাগরিতে সেরা রিপোর্টের জন্য পুরস্কার দিয়েছে। পুরস্কারপ্রাপ্ত অপর দুজন হলেন- অনলাইন ক্যাটাগরিতে বাংলা ট্রিবিউনের সিনিয়র রিপোর্টার নুরুজ্জামান লাবু ও টেলিভিশন ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পেয়েছেন মাছরাঙা টেলিভিশনের সিনিয়র রিপোর্টার কাওসার সোহেলী।

রোববার বিকালে দুর্নীতি দমন কমিশন দুদকের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আব্দুল্লাহ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের হাতে এই পুরস্কার তুলে দেন।

পুরস্কার হিসেবে ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট ছাড়াও ৭৫ হাজার টাকা করে প্রাইজমানি দেওয়া হয়েছে।

সূত্র জানায়, রিপোর্টার্স অ্যাগেনেইস্ট করাপশন র‌্যাকের পক্ষ থেকে প্রথমবারের মতো দুর্নীতিবিরোধী অনুসন্ধানী প্রতিবেদনের জন্য এ পুরস্কার চালু করা হয়েছে। চলতি বছর প্রিন্ট, অনলাইন ও টেলিভিশন ক্যাটাগরিতে মোট ২৬টি প্রতিবেদন জমা পড়েছিল।

সেরা রিপোর্ট বাছাই প্রক্রিয়ার বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান ও বর্তমান আজকের পত্রিকার সম্পাদক ড. মো. গোলাম রহমান, মাছরাঙা টেলিভিশনের বার্তা প্রধান রেজওয়ানুল হক রাজা ও এএফপির ঢাকা ব্যুরোপ্রধান শফিকুল আলম।

পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে দুদক চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আব্দুল্লাহ বলেন, দুর্নীতি বন্ধে সামাজিক আন্দোলন জরুরি। সাংবাদিকরা দুর্নীতি দমনে সহায়ক শক্তি হিসেবে কাজ করে থাকেন। দুর্নীতি নিয়ে প্রতিবেদন তৈরি করে যারা অ্যাওয়ার্ড পাচ্ছেন তাদের অভিনন্দন জানাই। এ উদ্যোগের কারণে সবাই দুর্নীতি বিষয়ক বেশি বেশি প্রতিবেদন তৈরি করবে- সেই প্রত্যাশা করছি।

দুদক কমিশনার ড. মোজাম্মেল হক বলেন, ভালো কাজে মর্যাদা না দিলে ভালো কাজ হয় না। র‌্যাকের এ উদ্যোগ প্রশংসনীয়। ভবিষ্যতে দুদকের পক্ষ থেকে দুর্নীতিবিরোধী প্রতিবেদন দেওয়া যায় কিনা সেটি নিয়ে আমরা কমিশনে আলোচনা করব। কারণ আমরা সবাই মূলত দুর্নীতির বিরুদ্ধে কাজ করি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক ও বর্তমানে আজকের পত্রিকার সম্পাদক ড. মো. গোলাম রহমান বলেন, দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবেদন তৈরি করতে হলে সাংবাদিকদের অনেক বিষয়েই নির্মোহ থাকতে হয়। কারণ নানাদিকের চাপ ও অন্যান্য বিষয়ের চ্যালেঞ্জ সামনে রেখে দুর্নীতিবিরোধী প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এই পুরস্কার নিঃসন্দেহে অন্য সাংবাদিকদের মধ্যেও উৎসাহ দেবে।

এএফপির ঢাকা ব্যুরোপ্রধান শফিকুল আলম বলেন, প্রতিবেদন তৈরির ক্ষেত্রে, বিশেষ করে দুর্নীতি বিষয়ক প্রতিবেদনের ক্ষেত্রে অভিযুক্ত ব্যক্তি বা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির বক্তব্য কোট-আনকোট থাকাটা জরুরি। কারণ একটি প্রতিবেদন নানাভাবে অভিযুক্ত ব্যক্তির ওপর প্রভাব পড়তে পারে। জার্নালিজমের এথিকস মেনে প্রতিবেদন তৈরি করার আহ্বান জানান তিনি।

রোববার (২১ নভেম্বর) সেগুনবাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ের পঞ্চম তলায় আয়োজিত এ পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে দুদকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও গণামাধ্যমের কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। র‌্যাক সম্পাদক আহমেদ ফয়েজের সঞ্চালনায় এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন র‌্যাকের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে