টাচ নিউজ ডেস্ক: রূপচর্চার উপকরণ হিসেবে দিন দিন শিট মাস্কের জনপ্রিয়তা বাড়ছে। ঝামেলাহীন ও চটজলদি ব্যবহারের পাশাপাশি এটি ত্বক ভেতর থেকে ময়েশ্চারাইজ করে। জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ায় জনপ্রিয় এই ত্বকচর্চার পদ্ধতি ধীরে ধীরে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে সারা বিশ্বে।

শিট মাস্ক হল মুখের আকারের পাতলা পর্দা যা নানা গুণ সমৃদ্ধ তরলে ভেজানো থাকে। এই তরল একধরণের সেরাম যাতে ত্বকের জন্য উপকারি পুষ্টি উপাদান থাকে। অ্যালোভেরা, ভিটামিন সি, স্নেইল এক্সট্রাক্ট (শামুকের গুণসমৃদ্ধ), সি উইড বা বিশেষ ধরনের সামুদ্রিক উদ্ভিদ ইত্যাদি বিভিন্ন ধরনের সেরাম সমৃদ্ধ শিট মাস্ক বাজারে পাওয়া যায়।

শিট মাস্ক ব্যবহারের কারণ: সাধারণত একটি প্যাকেটে সেরামে ডুবানো একটি মাস্ক থাকে। এসব সেরামে হায়ালিউরোনিক অ্যাসিড ও নানারকম ভিটামিন থাকে যা ত্বকের জন্য উপকারি। তরল এসব সেরামে ভেজা মাস্ক মুখে দিয়ে রাখলে এটি ত্বকের গভীরে প্রবেশ করে।

শিট মাস্ক যা দিয়ে তৈরি: নানারকম ফেব্রিক দিয়ে শিট মাস্ক বানানো হয়। দাম অনুযায়ী ফেব্রিকে ভিন্নতা থাকে। কিছুটা কম দামের মধ্যে পাওয়া যায় নন-উওভেন ফাইবার ও সুতি কাপড়ের তৈরি মাস্ক। দুটিরই সেরাম শোষণ ক্ষমতা অতটা ভালো না। তবে সুতির ফাইবার নন-উওভেন থেকে কিছুটা ভালো।
হাইড্রোজেল কিছুটা দামি যার শোষণ ক্ষমতা দারুণ। এগুলো সাধারণত মুখের উপর ও নীচ- দুই ভাগে বিভক্ত থাকে যা মুখে লাগানোও সহজ। সবচেয়ে ভালো কোয়ালিটির হচ্ছে বায়ো সেলুলোজ যা দামেও কিছুটা বেশি। এটি জেল দিয়ে বানানো হওয়ায় এদের শোষণ ক্ষমতা দারুণ আবার ত্বকে বসেও এদকম মুখের আকার অনুযায়ী। ফলে মুখের সব কোণে সুন্দর করে সেরামের গুণাবলী পৌঁছে।

যেভাবে ব্যবহার করবেন: খুব সহজেই ব্যবহার করা যায় এই শিট মাস্ক। মুখ ধুয়ে মুছে নিতে হবে। তারপর মাস্ক খুলে ২০ থেকে ৩০ মিনিটের জন্য মুখে দিয়ে রাখতে হবে। এই মাস্ক মুখে দিয়ে অন্যান্য কাজও করতে পারবেন। এমনকি মাস্ক ওঠানোর পর ধোয়ারও প্রয়োজন নাই। এতে করে ত্বকের পরিচর্যার জন্য আলাদা সময় বের করা লাগেনা।

এসব শিট সাধারণত একটিই মাপের পাওয়া যায়। মুখে লাগানোর সময় কপাল থেকে শুরু করা ভালো। প্রয়োজন মনে করলে চোখ, নাক বা গালের দিকে কিছুটা কেটে বড় করে নিতে পারেন।

শিট মাস্কের বিকল্প নাই: শিট মাস্ক খুব দ্রুত কাজ করে তাই ত্বকের সমস্যা দূর করতে ও যত্ন নিতে শিট মাস্কের বিকল্প নাই। অন্যান্য মাস্কে ত্বক শুকিয়ে যাওয়ার প্রবণতা থাকলেও শিট মাস্কে তা থাকে না। স্পা, স্যালন বা পার্লারে যেয়ে দীর্ঘক্ষন ধরে ত্বকের যত্ন নেওয়ার সময় যাদের নাই তাদের জন্য শিট মাস্ক দারুণ উপকারি। নিজ নিজ তক্বর ধরণ ও চাহিদা অনুযায়ী বেছে নিতে পারেন এই মাস্ক।

শিট মাস্ক ত্বকের নারিশেমেন্ট অর্থাৎ ত্বকে পুষ্টি যুগিয়ে ত্বকের গুণাগুণ বৃদ্ধি করে। এটি কিন্তু এক্সফোলিয়েট বা মরা ত্বক ঝরানো বা পরিষ্কার করে না। তাই শুধুই শিট মাস্ক দিলে পরিপূর্ণ ত্বক চর্চা হয়ে যাবে তা কিন্তু না। আলাদা করে ত্বক পরিষ্কার ও এক্সফোলিয়েট করতে হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে