টাচ নিউজ ডেস্ক: রাজনৈতিক আলাপচারিতা শেষে গতরাত ১০ টার কিছু পরই নিজ বাসভবনে ফেরার পথে আগে থেকেই আড়ালে লুকিয়ে থাকা দুষ্কৃতকারীদের উপর্যুপরি দাড়াঁলো অস্ত্রের আঘাতে নির্মম ভাবে আহত হোন পল্লীবন্ধু এরশাদ মুক্তি আন্দোলনে খুলনার রাজপথ কাঁপানো ছাত্র সমাজ নেতা, সাবেক সাংসদ আলহাজ্ব শেখ আবুল হোসেন ও নির্মম ভাবে হত্যার স্বীকার হওয়া খুলনা জেলা জাতীয় পার্টির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মরহুম আবুল কাশেম এর ভাতিজা জাতীয় পার্টি কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য ও খুলনা জেলা জাতীয় যুব সংহতির সাধারণ সম্পাদক যুবনেতা এরশাদুজ্জামান ডলার।

কাপুরুষোচিত এহেন হামলার তীব্র নিন্দা এবং প্রতিবাদ জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান জনাবা বিদিশা এরশাদ ও ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব কাজী মোঃ মামুনুর রশীদ।

প্রতিবাদ লিপিতে নেতৃদ্বয় বলেন, হত্যাকান্ড নিশ্চিত ভেবেই হামলাকারীরা ডলারকে রাস্তায় ফেলে চলে যায়। পরে স্হানীয় এলাকাবাসী ও জাতীয় পার্টি কর্মীরা তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যান। এবং সুচিকিৎসার
ব্যবস্হা করান। এ ঘটনায় খুলনা মহানগর জুড়ে বিরাজ করছে থমথমে অবস্থা। পুলিশ সদস্যরা হামলাস্হল সহ হাসপাতালে আসলেও এরশাদু্জ্জামান ডলারের চিকিৎসা শেষ না হওয়া পর্যন্ত আহতের জবানবন্দি নিতে পারেননি।

জাতীয় পার্টি নেতৃদ্বয় খুলনা জেলা ও মহানগর পুলিশ প্রশাসনের নিকট ডলারের উপর হামলাকারীদের ২৪ ঘন্টার মধ্যে গ্রেফতার করার দাবী জানিয়ে বলেন, অন্যথায় উদ্ভুদ্ধ পরিস্থিতির দায় পুলিশ প্রশাসনকেই নিতে হবে । এভাবে হত্যা বা হামলার ঘটনা রাজনীতিকে কলুষিত করে ফেলেছে। যা মেনে নেয়া যায়না। আইন শৃঙ্খলা বাহিনী সঠিক ভাবে দায়িত্ব পালন করলে ঘটনার পিছনে কে বা কারা জড়িত রয়েছে তাও বের হয়ে আসবে বলে বিবৃতিতে জানান জাতীয় পার্টি নেতৃদ্বয়।

একে//

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে