ইকবাল আহমেদ লিটন: রাজনীতিতে কখনো নিজের স্বার্থের জন্য আসিনি বা কোন পদ-পদবীর জন্যও না। মাধ্যমিকে যখন বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে পড়লাম সর্বশেষ একটা কথা লেখা ছিলো যে, এই ১,৪৫,৫৭০ বর্গকিলোমিটার যার সাথে অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িত তার নাম সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তার জীবনী পড়ে উৎসাহিত হই। চলে আসি ছাত্র রাজনীতিতে।

জীবনের যে সময়টা খেলাধুলা আর আনন্দ করার কথা ছিলো, তখন রাজপথে এসে স্লোগান তুলি জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু বলে। এতটুকু এসেছি, অনেক কিছু দেখেছি, শিখেছি কিন্তু কর্মীবান্ধব নেতা খুব কমই দেখেছি। আমার জীবনের ইচ্ছাগুলো কোন উঁচু আসনের ছিলো না। সবচেয়ে বড় বিষয় আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক এবং এর থেকে বড় পদ-পদবী বা পরিচয় আমার হয়তো আর দরকার নেই। যতদিন বেঁচে আছি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে, জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরও শক্তিশালী করে যাবো -ইনশাআল্লাহ। তবুও এ কলম থামবেনা। আমার কলম থামিয়ে দেবার চেষ্টা আজও চলমান। কারা সেই রাজনীতির সেবক? যারা দলের প্রচার করাকে অপপ্রচার বলে রুখে দিতে চাই? রাজনীতির জয়গান যদি এমনটা হয়-

১. রাজনীতি মানে নীতির সাথে এগিয়ে যাওয়া।
২. রাজনীতি মানে মানুষের উপকার করা।
৩. রাজনীতি মানে কর্মীদের আপন করা।
৪. রাজনীতি মানে রাষ্ট্রের উন্নয়নশীল কর্মকান্ড সততার সাথে মানুষের মাঝে তুলে ধরা।
৫. রাজনীতি মানে নিজে যে দায়িত্ব পালন করি সেই দায়িত্বতে দলের শৃঙ্খলা বজায় রাখতে সঠিক সময় অন্যের কাছে হস্তান্তর করা।
৬. রাজনীতি মানে কর্মীর বিপদের কথা শুনলে নিজ দায়িত্বে ঝাঁপিয়ে পড়া।
৭. রাজনীতি মানে সংগঠনের উন্নয়ন করা এবং সমর্থন তৈরী করা।
৮. রাজনীতি মানে আরো অনেক কিছু ইত্যাদি

আমরা আজকে দেখব যারা রাজনীতির সাথে পলিটিক্স করেন তাদের বাস্তব রূপ কেমন হতে পারে?

১. পলিটিক্স মানে কি অন্যের জায়গা নিজের করে নেওয়া
২. পলিটিক্স মানে কি বহুরূপী হয়ে মঞ্চে কথা বলা?
৩. পলিটিক্স মানে কি কর্মীদের বিপদে ফেলে নিজের স্বার্থ উদ্ধার করা?
৪. পলিটিক্স মানে কি দিনের বেলায় এক কথা আর রাতের বেলা অন্য কিছু করা?
৫. পলিটিক্স মানে কি নিজের সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা সহযোদ্ধাকে ঘায়েল করা এবং তার সমালোচনা করা?
৬. পলিটিক্স মানে কি কোন ধরনের কর্মীরা যদি ন্যায্য অধিকার কথা বলে তাকে ষড়যন্ত্র করে বিপদে ফেলা?
৭. পলিটিক্স মানে কি কর্মীকে ঘায়েল করার জন্য বহুমুখী কথা বলা এটা রাজনীতি শব্দের ছোট্ট একটা নমুনা ইত্যাদি আরও অনেক কিছু।

যাইহোক, রাজনীতি করতে এসেছি বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে আর মমতাময়ী নেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সকল ষড়যন্ত্রকে উপক্ষে করে বলবো, বিশ্বাসঘাতক খুনি মোস্তাক একজন নয় আরও অনেকেই আছে। তারপরও বলবো, জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু।।

লেখকঃ সাবেক ছাত্রলীগ নেতা, বর্তমান সদস্য সচিব, আয়ারল্যান্ড আওয়ামী লীগ৷

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে