স্টাফ রিপোর্টার: রাজধানীর সবুজবাগ থানাধীন এলাকায় হাইকোর্টের বিচারাধীন মামলা ও রাজউকের আদেশ অমান্য করেই নির্মাণ কাজ করছে কানাই লাল সরকার গং।

সুত্রে জানা যায়, ঢাকা জেলা জজকোর্টে বিচারাধীন দেওয়ানী মামলা ৩৮৫/১০, ৩৪৯/১৩, ২৮৪৫/০৯নং মোকদ্দমা ও মহামান্য হাইকোর্টে বিচারাধীন সিভিল রিভিউ সিআর- ২৩৬৭/২০১৯ইং মামলায় উল্লেখিত ভূমিতে যা ১৪৪/১/-বি বাতিলকৃত হোল্ডিং আহম্মদবাগস্থ ভূমিতে রাজউক এর জোন-৬ বিগত ৩১/১২/২০১৯ইং তারিখে সূত্র নং- ২৫.৩৯.০০০০.১২২.৩৩.৭০৬.১৭.১৪২০ ভূমি ছাড়পত্র ও নক্সা বাতিল না করে নির্মাণ কাজ
বন্ধের নির্দেশ দেন। অথচ রাজউক’ই কানাই লাল সরকার গং দের জলি-জালিয়াতি কাগজপত্র দিয়ে দুর্ণীতির মাধ্যমে নক্সা অনুমোদন দিয়েছেন।

জানা গেছে, রাজউকের বিতর্কিত চীফ ইন্সপেক্টর প্রকৌশলী শাহনাজ খানম ও তার স্বামী চীফ ইন্সপেক্টর প্রকৌশলী মোঃ তোহা’র নিজ বাড়ির বিপরীত পাশেই বিতর্কিত এ ভূমিতে ভবন নির্মাণ কাজ করানো হচ্ছে। গত ১৭ আগষ্ট তারিখে রাজউকের চেয়ারম্যান বরাবরে হাইকোর্টের বিচারাধীন মামলা ও রাজউকের নির্দেশ অমান্যকারী কানাইলাল সরকার গং কে দেয়া ভূমি ছাড়পত্র ও নক্সা বাতিলসহ চলমান নির্মাণ কাজ বন্ধের আবেদন করা হয়।

গত ১৮ আগষ্ট তারিখে ডিএমপি’র সবুজবাগ থানায় মোছাদ্দেক পাশা একটি সাধারণ ডায়েরী করেন। যার নং ৬৫২। সাধারণ ডায়েরীতে তিনি উল্লেখ করেন, বিগত ২৭ মার্চ ২০০৩ইং সালে মোঃ রজ্জব আলী হতে ১২০৬নং দলিল মূলে খরিদ করেন। পরবর্তীতে ওসমান সরদার, পিতা- খালেক সরদার, ৩৮নং পূর্ব বাসাবো, সবুজবাগ থানা গং উল্লেখিত জমিতে ২০১০ইং সালের জুন মাসের ১০ তারিখে ৫৬৪৮নং জাল দলিল উপস্থাপন করে। ফলে মোছাদ্দেক পাশা বাদী হয়ে ঢাকার ৫ম যুগ্ম জেলা জজ কোর্টে দেওয়ানী ৩৮৫/২০১০নং মামলা করেন। যা অদ্যাবধি বিচারাধীন থাকাবস্থাতেই কানাই লাল সরকার গং নামে ৮১৬৮নং জাল দলিল সৃষ্টি করে, যা ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন অঞ্চল-২ (খিলগাঁও) বিগত ১৬ মে ২০১৮ইং তারিখে সূত্র নং ৪৬.২০৭.০০০.২৪.৩৭.৩৩৫০/২০১৮ স্মারকে সবুজবাগ থানাধীন হোল্ডিং নং ১৪৪/১-বি বাতিল করে।

ভূক্তভোগী মোছাদ্দেক পাশা জানান, ইতিপূর্বে রাজউকের ইন্সপেক্টর মিসেস তামান্না নিসু সরেজমিনে তদন্তকাজ বন্ধ করে দেয়। রাজউক এর ইন্সপেক্টর তামান্না নিসু চলে যাওয়ার পর কিছু অজ্ঞাতনামা লোক কানাই লাল সরকারের পক্ষ নিয়ে প্রাণনাশের হুমকী দেয়।

বর্তমানে সাধারণ ডায়েরীটি তদন্ত করছেন সবুজবাগ থানার এসআই মোঃ মঞ্জুর রহমান। তদন্তকারী কর্মকর্তার সাথে কথা বলে জানা যায় অপরাধীরা কারো বাধার তোয়াক্কা না করে নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। এমন কি পুলিশের বাধাও মানছে না। আবার অন্য দিকে জানা যায় সি.আই.ডিতে কর্মরত এসআই জাহাঙ্গীর পরিচয় দানকারী(মোবা: ০১৯৮৫-৩৪৪০৯০) পরিকল্পিতভাবে দীর্ঘ্য ১০বছর ধরে জাল-জালিয়াত চক্র কানাই লাল সরকার গং দের পক্ষে বিভিন্ন সরকারী সংস্থায় ভূক্তভোগী মোছাদ্দেক পাশার বিরুদ্ধে তদবির করে আসছে। অনুসন্ধান অব্যাহত।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে