টাচ নিউজ ডেস্কঃ উত্তর আমেরিকার দেশ মেক্সিকোতে প্রায় ৬ হাজার অভিবাসীকে আটক করা হয়েছে। মাত্র চারদিনে বিপুল সংখ্যক এসব বিদেশি অভিবাসীকে আটক করা হয়। মেক্সিকোর জাতীয় অভিবাসন ইনস্টিটিউট (আইএনএম)-এর বরাত দিয়ে মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

সোমবার (২৫ এপ্রিল) এক বিবৃতিতে আইএনএম জানিয়েছে, গত ২১ থেকে ২৪ এপ্রিল পর্যন্ত চালানো অভিযানে মোট ৫ হাজার ৬৮৮ জন অভিবাসীকে আটক করা হয়। আটককৃত এসব অভিবাসীদের বেশিরভাগকেই নিরাপদ ঘর, ট্রেলার, বা বাসের কম্পার্টমেন্ট বা ট্রাকের কেবিনে লুকানো অবস্থায় পাওয়া যায়।

এছাড়া অন্যান্য অভিবাসীদেরকে মরুভূমির মধ্য দিয়ে বা হাইওয়ে ধরে হাঁটার সময় আটক করা হয়। এসব অভিবাসী মূলত যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো সীমান্তে পৌঁছানোর চেষ্টা করছিল। মেক্সিকোর জাতীয় অভিবাসন ইনস্টিটিউটের সোমবার দেওয়া ওই বিবৃতির তথ্য অনুযায়ী, অভিযানের পর আটককৃত মোট ৪২টি দেশের অভিবাসীদের কারাগারে রাখা হয়েছে।

রয়টার্স বলছে, আটককৃত এসব অভিবাসীদের বেশিরভাগই মধ্য আমেরিকা ও ক্যারিবীয় দেশগুলোর নাগরিক। এখন পর্যন্ত আটককৃতদের মধ্যে হন্ডুরাসের ১ হাজার ৬০ জন, কিউবার ৯৪২ জন এবং গুয়েতেমালার ৯০৬ জন অভিবাসী রয়েছেন।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, চলতি বছরের শুরু থেকে গত ১৩ এপ্রিল পর্যন্ত মোট ১ লাখ ১৫ হাজার ৩৭৯ জন অভিবাসীকে আটক করেছে মেক্সিকান অভিবাসন কর্তৃপক্ষ। অবৈধ অভিবাসন যে পরিষ্কারভাবেই বাড়ছে সেটি এই পরিসংখ্যানেই স্পষ্ট।

জো বাইডেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর প্রথম বছরে রেকর্ডসংখ্যক অভিবাসী যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো সীমান্ত পার করার চেষ্টা করেছেন। জো বাইডেনের ডেমোক্র্যাট প্রশাসন অভিবাসনের মূল কারণগুলো চিহ্নিত করে সংকট মোকাবিলার চেষ্টা করছে। সম্প্রতি মেক্সিকো ও পানামাতে দূতও পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে