টাচ নিউজ ডেস্কঃ মিরপুর সাইন্স কলেজের ২০২১-২২ সেশনের শিক্ষার্থীদের নবীন বরণ অনুষ্ঠিত হয়। গত বৃহঃবার কলেজ অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মিরপুর সাইন্স কলেজের উপদেষ্টা এবং অতীশ দীপঙ্কর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর আলম।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কলেজের একাডেমিক উপদেষ্টা ইঞ্জিঃ এইচ এম বেলাল নীল।

পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের শুরু হয়। কোরআন তেলাওয়াত করেন ১ম বর্ষের শিক্ষার্থী কাওসার আহমেদ। এরপর সমবেত কন্ঠে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। নবীনদের স্বাগত জানিয়ে বক্তব্য রাখেন ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী আবরার আহমেদ ও সাদিয়া ওয়ামিয়া অপি।

অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেয় ১ম বর্ষের শিক্ষার্থীরা। মিরপুর সাইন্স কলেজের পক্ষ থেকে অতিথিদের সম্মাননা ক্রেষ্ট প্রদান করেন কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ আনোয়ার হোসেন রিপন। এরপর নটরডেম সাইন্স ক্লাব আয়োজিত বিজ্ঞান মেলায় ৩য় স্থান অধিকারী এমএসসি সাইন্স ক্লাবের সদস্যদের ক্রেষ্ট প্রদান করেন অতীশ দীপঙ্কর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর আলম। বিজ্ঞান মেলায় অংশ গ্রহণকারী এই দলে ছিলেন ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী সুমাইয়া মীম ও সাদিয়া ওয়ামিয়া অপি। দলের মেন্টর হিসেবে ছিলেন পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক কাজী মোঃ তানভীর হাসান।

মিরপুর সাইন্স কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ আনোয়ার হোসেন রিপনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন রসায়ন বিভাগের প্রভাষক সৈকত আলম শাকিল, ইংরেজী বিভাগের প্রভাষক ফারহানা আকতার, পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক কাজী তানভীর হাসান, প্রশাসনিক কর্মকর্তা মাহমুদুল হক খোকন।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, মিরপুর সাইন্স কলেজের নবীন বরণ অনুষ্ঠানে আসতে পেরে তিনি খুবই আনন্দিত। কলেজের শুরু থেকেই তিনি এই প্রতিষ্ঠানের সাথে ওতপ্রোতভাবে লেগে আছেন। কলেজ প্রতিষ্ঠার পূর্বে যে সাইন্স কোচিং ছিল তখন থেকেই তিনি বিভিন্ন অনুষ্ঠানে আসতেন। তিনি মনে মনে মনে কল্পনা করতেন এই সাইন্স কোচিং একদিন সাইন্স কলেজে পরিণত হবে এবং কলেজ থেকে একদিন বিশ্ববিদ্যালয় হবে। তার স্বপ্ন অনেকটাই পূরণ হয়েছে। এ জন্য তার অনেক ভালো লাগছে। ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনার বিষয়ে সিরিয়াস হওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন এইচএসসি লেভেল জীবনের অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি অধ্যায়। এখান থেকেই মানুষের ভবিষ্যত জীবনে কে কি হবে তা চুড়ান্ত হয়ে যায়।

তিনি বলেন সফলতার জন্য কোন শর্টকার্ট রাস্তা নেই। এটা পরিশ্রম ও সাধনার মাধ্যমে অর্জন করতে হয় । তিনি তার ব্যক্তি জীবনের বিভিন্ন ঘটনা তুলে ধরে বলেন তিনি নিজেও খুব সংগ্রাম করে বড় হয়েছেন।

তিনি এসেছেন খুব সাধারণ একটা পরিবার থেকে। পরিশ্রম, সাধনা ও শিক্ষকদের উৎসাহ অনুপ্রেরণার মাধ্যমে তিনি সফলতা লাভ করেছেন। তিনি বলেন শুধু ভালো ছাত্র হওয়াই শেষ কথা নয় ভালো মানুষ ও চরিত্রবান হও‍য়া আরো বেশি দরকার।

তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন মিরপুর সাইন্স কলেজ একদিন সারা দেশের সেরা কলেজগুলোর একটা কলেজে পরিনত হবে ইনশাল্লাহ। তিনি নটরডেম সাইন্স ক্লাব আয়োজিত বিজ্ঞান মেলায় ৩য় স্থান অধিকারী এমএসসি সাইন্স ক্লাবের সদস্যদের ভূয়সী প্রশংসা করেন। নতুন কলেজ হিসেবে এই সফলতা অর্জন এই কলেজেকে আর অনেকদূর এগিয়ে নিয়ে যাবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

সভাপতির বক্তব্যে মিরপুর সাইন্স কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ আনোয়ার হোসেন রিপন বলেন, আজকের এই অনুষ্ঠানে জ্ঞানীগুণি ব্যক্তিদের আগমন এই নবীন বরণ অনুষ্ঠানকে সার্থক ও সফল করে তুলেছে। অনেক ব্যস্ততার মধ্যে নবীন বরণ অনুষ্ঠানে আসার জন তিনি মিরপুর সাইন্স কলেজের উপদেষ্টা এবং অতীশ দীপঙ্কর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর আলমকে বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানান। মিরপুর সাইন্স কলেজকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য তার বহুমুখী প্রচেষ্টার প্রশংসা করেন ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

তিনি নবীন বরণ অনুষ্ঠান সফল করার জন্য ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক, কর্মকর্তা,কর্মচারী সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় মিরপুর সাইন্স কলেজ একদিন তার কাংখিত লক্ষ্যে পৌছাবেই ইনশাল্লাহ।

অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে মিরপুর সাইন্স কলেজের অডিটোরিয়াম , গেট ও ভবন সুদৃশ্যভাবে সাজানো হয়। এ জন্য দৃষ্টি নন্দন মঞ্চও তৈরি করা হয়। কলেজের ছাত্রছাত্রীরা দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠানে নিজেরা নাচ, গান, কবিতা আবৃত্তি,সমবেত গান, কৌতুকসহ নানা ধরনের কর্মকাণ্ডে অংশ গ্রহণ করেন। কলেজের শিক্ষকগণও সঙ্গীত পরিবেশন করেন। দুপুরে সবার জন্য ছিল বিশেষ লাঞ্চের ব্যবস্থা।

সব মিলিয়ে একটা আনন্দঘন ও বর্ণিল দিন উপভোগ করল মিরপুর সাইন্স কলেজের ছাত্র-শিক্ষক-কর্মকর্তা ও কর্মিচারীবৃন্দ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে