টাচ নিউজ ডেস্কঃ সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের দেশ ইউক্রেনে সামরিক অভিযান চালাচ্ছে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম পরাশক্তি রাশিয়া। ইউক্রেনের লুহানস্ক ও ডোনেটস্ক অঞ্চলকে গত ২১ ফেব্রুয়ারি স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দেয় রাশিয়া। এরপর ওই অঞ্চলে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরু করে রুশ বাহিনী।

এদিকে, রাশিয়ার সীমান্তের একেবারে কাছে ইউক্রেনের গুরুত্বপূর্ণ বন্দরনগরী মারিওপোল। আর এই শহরেই রুশ বাহিনীর সঙ্গে ইউক্রেনীয় যোদ্ধাদের তীব্র লড়াই চলছে। চলমান পরিস্থিতি নিয়ে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁকে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, মারিওপোলের জাতীয়তাবাদীদের অবশ্যই অস্ত্র রেখে দিতে হবে। এ নিয়ে দুই নেতার মধ্যে কথাপোকথনের বিষয়টি জানিয়েছে ক্রেমলিন। মঙ্গলবার (২৯ মার্চ) এ খবর প্রকাশ করেছে সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা।

বিবৃতিতে ক্রেমলিনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ‘মারিওপোল শহরের কঠিন মানবিক পরিস্থিতি সমাধানের জন্য ইউক্রেনীয় জাতীয়তাবাদীদের অবশ্যই প্রতিরোধ বন্ধ করতে হবে। সেই সঙ্গে তাদেরকে অস্ত্র রেখে দিতে হবে। আর এ বিষয়টির উপর আগেও জোর দেওয়া হয়েছিল।’

ইউক্রেন যুদ্ধ বন্ধের প্রসঙ্গে রুশ প্রেসিডেন্টের ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে কখন ফোনালাপ হয়েছে তা স্পষ্ট করেনি ক্রেমলিন। চলমান পরিস্থিতিতে একাধিকবার পুতিনের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করেছে ম্যাক্রোঁ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে