টাচ নিউজ ডেস্ক: মানবসেবাকে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ ব্রত হিসেবে গ্রহণ করেন, ধর্মবর্ণ নির্বিশেষে মানুষ মানুষের জন্য প্রমাণ দিয়েছেন অনেকেই। মানবসেবার মতো এমন মহৎ কাজে নিজেকে বিলিয়ে দিয়েছেন আমেরিকার প্রবাসী এডভোকেট মোঃ ফজলুল হক।

কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার বাকশীমুল গ্রামে জন্ম এডভোকেট মোঃ ফজলুল হকের। বর্তমানে তিনি প্রবাসে থাকলেও দেশের জন্য রয়েছে তার অকৃত্রিম ভালোবাসা। আর সেই ভালোবাসার টানেই সুদূর অমেরিকায় বসেও কাজ করছেন বাংলাদেশের নিম্ন আয়ের মানুষদের জন্য।

সম্প্রতি করোনার ভয়াল থাবায় যখন অশ্চিয়তার মুখে পড়েছিলো এদেশের নিম্ন আয়ের মানুষের খাদ্যের ভবিষ্যত, তখন সুদূর প্রবাস থেকে দেশের মানুষের মুখে খাবার তুলে দিতে আপ্রাণ চেষ্টা করেছেন ফজলুল হক। শুধু মহামারিতেই নয়, বাকশীমুলসহ আশেপাশের কয়েকটি গ্রামের মানুষ প্রায় সব বিপদেই পাশে পেয়েছেন তাকে।

সরজমিনে গিয়ে জানা যায়, বাকশীমূল ইউনিয়নে প্রাইমারি স্কুল, মাদ্রাসা, ও হাই স্কুলে পড়ুয়া গরীব ও মেধাবী ছাত্রদের শিক্ষা কার্যক্রম সচল রাখতে স্বাধ্যমত বৃত্তি প্রদান করে আসছেন ফজলুল হক। ইউনিয়নের সকল মসজিদ-মাদ্রাসায়, গরীব মালকিন এতিম ও বিধবাদের সহায়তায় সব সময় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন মানবসেবায় ব্রত এ মানুষটি। সমাজের প্রায় প্রতিটি ধাপের উন্নয়নমূলক কাজে জড়িত ফজলুল হক।

ফজলুল হকের মনের সরলতা ছুঁয়েছে গ্রামের মানুষের কোমল হৃদয়কেও। তার অক্লন্ত পরিশ্রম ও উন্নয়নমূলক বিভিন্ন কর্মকান্ডে গ্রামবাসীর মনে উন্নত জীবনের আশা জুগিয়েছে।

গ্রামবাসীদের মধ্যে একজন বলেন, দেশপ্রেমিক বাঙ্গালীর প্রায় সব গুনই আছে ফজলুল হকের। তিনি পারতেন ওই আমেরিকার আরাম আয়েশে মেতে থাকতে, দেশকে ভুলে থাকতে। তবে তিনি তা করেননি, তিনি বিদেশে থাকলেও তার মন পড়ে আছে আমাদের গ্রামে, তিনি ভাবেন আমাদের উন্নয়নের কথা। তাই তাকে ঘিরে আমদের অনেক স্বপ্ন, অনেক প্রত্যাশা। আমাদের জীবনমান উন্নয়নের লক্ষ্যে সরল মনের এই মানুষটিকে আমরা আমাদের ইউনিয়ন পরিষদের দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত জনপ্রনিধি হিসেবে দেখতে চাই।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে