টাচ নিউজ ডেস্ক: নারী শ্রমিক অভিবাসনের নামে নারীদের কোথায় পাঠাচ্ছে সরকার? প্রশ্ন করে জানতে চেয়ে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেন, আমাদের দেশের নারী শ্রমিকরা মধ্যপ্রাচ্যে গৃহকর্মী হিসেবে চাকরি পেলেও তারা কার্যত পালাক্রমে যৌন নির্যাতনের শিকার হয়ে যাচ্ছে। মধ্যপ্রাচ্যে নারী শ্রমিকদের নিরাপত্তা না থাকায় তারা সহিংসতার শিকার হচ্ছে, নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে শ্রমিকদের পাঠানোর কারণে অত্যাচার, নির্যাতন, ধর্ষণ ও হত্যাকান্ডের মতো ঘটনা ঘটছে।

শনিবার ( ৯ নভেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সৌদি ও মধ্যপ্রাচ্যে নারী শ্রমিকদের নির্যাতনের প্রতিবাদে বাংলাদেশ জাতীয় মানবাধিকার সমিতির উদ্যোগে আয়োজিত নাগরিক মানববন্ধনে প্রধান বক্তার বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, মধ্যপ্রাচ্য থেকে বাংলাদেশের অনেক নারী শ্রমিক লাশ হয়ে ফিরছেন। অনেকে ফিরছেন সর্বস্ব হারিয়ে, সারা শরীরে নির্যাতনের চিহ্ন নিয়ে। তারা আমাদের বোন, মেয়ে, মা। অথচ কোথাও কোনো উদ্বেগ নেই, কোথাও ক্রোধের প্রকাশ নেই। এর একটা কারণ সম্ভবত এই যে যাঁরা নারী শ্রমিক হয়ে মধ্যপ্রাচ্যে যাচ্ছেন, তাঁদের প্রায় সবাই দরিদ্র শ্রেণিভুক্ত। গরিবের কথা বলে মুখে ফেনা তুলে ফেললেও আদতে এদের আমরা মানুষ বলে মনে করি না।

তিনি বলেন, সৌদি আরবে নারীদের ওপর অত্যাচার দিন দিন বেড়েই চলেছে। এখন আর চুপ থাকার সময় নেই। সবকিছুরই একটি সীমা থাকে। কিন্তু এটি সীমা ছাড়িয়ে গেছে। এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ হওয়া দরকার।

তিনি আরো বলেন, সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের মালিকরা নারীদের ওপর নির্যাতন করে। এ কারণে শ্রীলঙ্কা, ফিলিপাইন, মালয়েশিয়া ও পাকিস্তান নারীদের সেখানে পাঠানো বন্ধ করেছে। আমাদের দেশের নারী নির্যাতনের ঘটনায় প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় কিছুই করে না। তাদের কাছে অভিযোগ করেও কোনও সাড়া পাননি নির্যাতিত নারীরা। এর জন্য দায়ী সরকারের প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়।

সভাপতির বক্তব্যে মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা বলেন, আমাদের দেশের নারী শ্রমিকরা বিদেশে কাজ করতে গিয়ে যে নির্যাতনের শিকার হয়, তা সরকার কিংবা সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় পর্যবেক্ষণ করছে না। এমনকি বিদেশে যে দূতাবাস রয়েছে, তারাও কোনও খোঁজ-খবর নিচ্ছে না। যেসব দালালের মাধ্যমে নারীরা বিদেশে যাচ্ছে, তাদেরও মনিটোরিং করা হচ্ছে না। এসব নারী শ্রমিকদের নিয়ে মাঠে কাজ করা সংগঠনগুলো এ বিষয়ে সরকারকে জানালেও তা আমলে নেওয়া হচ্ছে না। যারা নারীদের বিদেশে পাঠাচ্ছে, তাদের আইনের আওতায় আনা প্রয়োজন।

জাতীয় মানবাধিকার সমিতির চেয়ারম্যান মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা’র সভাপতিত্বে ও সাংগঠনিক সম্পাদক এড. সাইফুল ইসলাম সেকুলের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন সমিতির মহাসচিব মুহম্মদ মফিজুর রহমান লিটন, বিশিষ্ট সাংবাদিক মতিউর রহমান সরদার, বাংলাদেশ ন্যাপ ঢাকা মহানগর সভাপতি মো. শহীদুননবী ডাবলু, শেরে বাংলা গবেষনা পরিষদের মহাসচিব আর কে রিপন, বন্ধু সমাজের নাজমুল আহসান সুমন, মানবাধিকার নেত্রী রিমা সরদার, সংগঠনের নারায়নগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি মো. মনজুরুল ইসলাম কাজল, কুমিল্লা উত্তর জেলা প্রতিনিধি পারভেজ হোসেন বাবু, ঢাকা মহানগর প্রতিনিধি আয়শা সিদ্দিকা, রাজশাহী জেলা প্রতিনিধি নিলুফার খাতুন, সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি মাহবুবুর রহমান যিশু প্রমুখ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে