টাচ নিউজ ডেস্ক: স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম বলেছেন, মশক নিধন ও ডেঙ্গু প্রতিরোধ কার্যক্রমে কোন ধরনের গাফিলতি সহ্য করা হবে না।
আজ রাজধানীর মানিক মিয়া এভিনিউতে স্থানীয় সরকার বিভাগ কর্তৃক ২৫-৩১ জুলাই ‘দেশব্যাপী মশক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা সপ্তাহ’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি একথা বলেন। স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদের সভাপতিত্বে এ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র জনাব মোহাম্মদ সাঈদ খোকন, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র জনাব মোঃ আতিকুল ইসলাম, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র জনাব মোঃ জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।
তিনি বলেন, দেশব্যাপী এডিস মশার প্রকোপ এবং ডেঙ্গুর বিস্তার বৃদ্ধি পেয়েছে। কাজেই মশার বিস্তাররোধ ও ডেঙ্গু প্রতিরোধে সংশ্লিষ্ট সরকারী দপ্তর/সংস্থা সমূহকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেয়া হয়েছে এবং আমরা সম্মিলিত ভাবে কাজ করছি। শীঘ্রই ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসবে বলে আশা করি।
দেশব্যাপী মশক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা সপ্তাহ উদ্বোধন করে মন্ত্রী এক বর্ন্যাঢ্য র‌্যালীতে অংশগ্রহণ করেন। এতে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ছাড়াও ক্রিকেট তারকা মাশরাফি বিন মুর্তজা, এমপি, চলচ্চিত্র তারকা ইলিয়াস কাঞ্চন, মৌসুমী, বিশিষ্ট কলামিস্ট আবুল মকসুদ এবং রাজনীতি, ক্রীড়া, সংস্কৃতিসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রের খ্যাতিমান ব্যক্তিত্ব ও জনসাধারণ অংশগ্রহণ করেন।
উল্লেখ্য ‘দেশব্যাপী মশক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা সপ্তাহ’ পালনের অংশ হিসেবে-
১। সারাদেশে সিটি কর্পোরেশন, জেলা, পৌরসভা, উপজেলা ও ইউনিয়নসমূহের উদ্যোগে সকল ড্রেন, নালা, খাল, জলাশয়, মজা পুকুর হতে কচুরিপানাসহ অন্যান্য ময়লা পরিষ্কার করা হবে।
২। স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান কর্তৃক মশক জন্মানোর সকল স্থানে (ওয়ার্ড/পাড়া/মহল্লাভিত্তিক) সময়সূচি নির্ধারণ করে প্রয়োজনীয় লার্ভিসাইড ও এডাল্টিসাইড প্রয়োগ করা হবে।
৩। দেশের সকল নাগরিককে নিজ নিজ বসতবাড়ি ও আঙ্গিনাসহ বাড়ির চারপাশ এবং সকল সরকারি/বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা কর্মচারীগণকে নিজ উদ্যোগে তাঁদের প্রতিষ্ঠান প্রাঙ্গণ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার অনুরোধ করা হয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে