অনলাইন ডেস্ক:পারস্য উপসাগরীয় অঞ্চলের নিরাপত্তা নিশ্চিন্ত করতে এবং সামরিক শক্তি প্রদর্শনের জন্য এবার যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে মধ্যপ্রাচ্যে যৌথভাবে বার্ষিক সামরিক মহড়া শুরু করেছে ৫০টি মিত্র দেশ। পারস্য উপসাগরসহ অঞ্চলটির বিভিন্ন কৌশলগত জলসীমায় এটি প্রদর্শিত হচ্ছে।

মঙ্গলবার অঞ্চলটিতে নিযুক্ত মার্কিন নৌবাহিনীর কেন্দ্রীয় কমান্ডের প্রধান ভাইস অ্যাডমিরাল জিম মালয় এক বিবৃতিতে জানান, ‘সোমবার থেকে শুরু হওয়া মহড়াটি ইতিহাসের সবচেয়ে বৃহৎ মহড়া। যা অঞ্চলটিতে আমাদের সকল মিত্র দেশগুলোর শক্তি এবং সক্ষমতার জানান দিতে আয়োজন করা হয়।’

মার্কিন নৌবাহিনীর এই ভাইস অ্যাডমিরাল আরও বলেন, ‘বাহরাইনে অবস্থানরত পঞ্চম নৌবহর এবং মধ্যপ্রাচ্যে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের নৌ সেনাদের কেন্দ্রীয় কমান্ড যৌথভাবে মহড়াটির পরিচালনা করছে। যা আরও কয়েকদিন স্থায়ী থাকবে।’

জিম মালয়ের ভাষায়, ‘এবারের মহড়ায় আগের চেয়ে অতিরিক্ত ২০টি রাষ্ট্র অংশ নিয়েছে। বিশ্বের একটি নজিরবিহীন এবং বিশাল এলাকায় মহড়াটি অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এর আগে কখনোই এমন বড় মহড়ার আয়োজন করা হয়নি।’

তিনি আরো বলেন, এ নিয়ে টানা ষষ্ঠবারের মতো অঞ্চলটিতে এমন মহড়া অনুষ্ঠিত হচ্ছে। বরাবরের মতো এবারও চারটি ধাপে মহড়া পরিচালিত হবে। যেখানে সেনা সদস্যদের প্রশিক্ষণ, ক্লাসরুম এক্সারসাইজ, টেবিল টপ এবং যুদ্ধজাহাজে প্রশিক্ষণসহ অঞ্চলের বিভিন্ন স্থানে সেনা মোতায়েনের মতো গুরুত্বপূর্ণ কর্মসূচি রয়েছে।

মার্কিন নৌবাহিনীর পক্ষ থেকে এরই মধ্যে মহড়াটির বিষয়ে একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তি পাঠানো হয়েছে। যেখানে বলা হয়- পারস্য উপসাগরীয় অঞ্চল, লোহিত সাগর, ওমান সাগর এবং ভারত মহাসাগরীয় এলাকায় মহড়াটি পরিচালিত হচ্ছে। এটি আরো কয়েকদিন স্থায়ী হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে