টাচ নিউজ ডেস্কঃ ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানির ফলে কমছে দাম। রাজশাহী ও নাটোরের পাইকারি বাজারগুলোতে মাত্র এক সপ্তাহের মধ্যে প্রতি কেজি পেঁয়াজ ১৮ টাকা কমে ২২-২৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

দাম কমে যাওয়ায় প্রতি কেজি পেঁয়াজে ৮ টাকা পর্যন্ত লোকসান গুনছেন কৃষকরা। কৃষকরা ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধের দাবি করেছেন।

গত সপ্তাহ থেকে নাটোরের হাট বাজারগুলোতে চারা জাতের নতুন পেঁয়াজ বাজারজাত শুরু হয়েছে। গত সপ্তাহেও প্রতিকেজি পেঁয়াজ ৪০-৪২ টাকা বিক্রি হলেও চলতি সপ্তাহে বিক্রি হচ্ছে ২২-২৫ টাকায়। কৃষকদের অভিযোগ ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানির ফলে দাম কমেছে। প্রতিকেজি পেঁয়াজ উৎপাদনে ৩০ টাকা খরচ হলেও বর্তমান দামে কেজিতে ৮ টাকা পর্যন্ত লোকসান গুনছেন বলে দাবি কৃষকদের।

এই পরিস্থিতিতে পেঁয়াজের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত না হলে পেঁয়াজ চাষে আগ্রহ হারাবেন বলে জানান কৃষকরা। আর ন্যায্য দাম নিশ্চিত করতে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধে দাবি করেন কৃষকরা। অন্য কৃষকদের মতো নাটোরের ব্যবসায়ীরাও জানালেন ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানির ফলে বিভিন্ন জেলায় চাহিদা কমেছে । এতে কমেছে দাম।

চলতি বছর নাটোর জেলায় ৪ হাজার ৬১০ হেক্টর জমিতে পেঁয়াজের উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও উৎপাদন হয়েছে ৪ হাজার ৭৫৬ হেক্টর জমিতে। চলতি মৌসুমে প্রায় ৮০ হাজার মেট্রিক টন পেঁয়াজ উৎপাদনের আশা করছে স্থানীয় কৃষি বিভাগ।

আর রাজশাহী জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, চলতি ২০২১-২২ মৌসুমে প্রায় ১৭৮হাজার হেক্টর জমিতে পেঁয়াজ চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়। তবে লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে এবার প্রায় ১৮ হাজার ৩০০ হেক্টর জমিতে চাষ হয়েছে বলে জানা যায়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে