টাচ নিউজ ডেস্ক: নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনীতে পূজামণ্ডপ ও মন্দিরে হামলা-ভাঙচুরের ঘটনায় উসকানিদাতা হিসেবে দায় স্বীকার করেছেন জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সহসভাপতি ফয়সাল ইনাম কমল (৩৯)।

জবানবন্দিতে তিনি বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্যাহ বুলুসহ ১৫ জনের সম্পৃক্ততার কথা বলেছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এর আগে সোমবার (২৫ অক্টোবর) বিকেলে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ সাঈদীন নাঁহীর আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন ফয়সাল ইনাম কমল।

জানা যায়, ফয়সাল বেগমগঞ্জ উপজেলার রাজুল্লাহপুর গ্রামের আবু হানিফের ছেলে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে অপপ্রচার, হামলা-ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় উসকানিদাতা হিসেবে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

রাত সাড়ে ১১টায় জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) শহীদুল ইসলাম ঢাকা পোস্টকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, তাকে বেগমগঞ্জ থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় আদালতে পাঠানো হয়।

এ সময় জড়িত থাকার বিষয়ে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে রাজি হন ফয়সাল ইনাম কমল। পরে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ সাঈদীন নাঁহী আসামিকে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি রেকর্ড করেন।

এসপি শহীদুল ইসলাম আরও বলেন, কমল বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্যাহ বুলুসহ ১৫ জনের সম্পৃক্ততার বিষয়ে জবানবন্দি দিয়েছেন। পূজামণ্ডপে হামলার ঘটনায় অন্য আসামিদের গ্রেফতার করতে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে