টাচ নিউজ ডেস্কঃ মহামারি করোনা ভাইরাসকে পরাজিত করে চলমান সংকটময় পরিস্থিতির অবসান নিশ্চিত করতে হলে বিশ্বের সকল মানুষকে টিকা দিতে হবে। এমনটাই মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তেনিও গুতেরেস। সোমবার (১৭ জানুয়ারি) সুইজারল্যান্ডের দাভোসের ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের সম্মেলনে ভিডিয়ো কনফারেন্সের মাধ্যমে অংশ নিয়ে নিজের বক্তব্যে গুতেরেস এসব কথা বলেন।

ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে জানানো হয়, দাভোসের এই বৈঠকে সারা বিশ্ব থেকে করপোরেট ও রাজনৈতিক নেতা, সেলিব্রেটি, অর্থনীতিবিদ ও সাংবাদিকসহ হাজারও প্রতিনিধি অংশ নিয়েছেন। বৈঠকটি সরাসরি উপস্থিত হয়ে অনুষ্ঠানের কথা থাকলেও ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট ছড়িয়ে পড়ায় গত বছরের মতো এবারও সেটি ভার্চ্যুয়ালি আয়োজন করা হয়েছে।

ভার্চ্যুয়াল মাধ্যমে দেওয়া বক্তব্যে জাতিসংঘের মহাসচিব বলেছেন, গত দুটি বছর আমাদের সমানে খুবই সাধারণ কিন্তু ভয়াবহ সত্য সামনে এনেছে। আর সেটি হচ্ছে… আমরা যদি একজনকেও পেছনে ফেলে রাখি, তাহলে আমরা সবাই পেছনে পড়ে যাব।

তিনি মনে করেন, আমরা যদি সবাইকে ভ্যাকসিন দিতে ব্যর্থ হই, তাহলে ভাইরাসের নতুন নতুন ভ্যারিয়েন্ট সামনে আসবে এবং বিশ্বব্যাপী সেটি ছড়িয়ে পড়বে। একই সঙ্গে সেই পরিস্থিতি আমাদের দৈনন্দিন জীবন ও অর্থনীতিকে স্তিমিত করে রাখবে।

আর তাই আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করার আহ্বান জানান জাতিসংঘ মহাসচিব।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) কোভিড প্রতিরোধী ভ্যাকসিন বিষয়ক একটি পরিকল্পনার তথ্য তুলে ধরে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের সম্মেলনে গুতেরেস দাবি করেন, ২০২১ সালের মধ্যে বিশ্বের মোট জনসংখ্যার ৪০ শতাংশকে এবং ২০২২ সালের অর্ধেক সময়ের মধ্যে ৭০ শতাংশ মানুষকে টিকা দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল।

তার ভাষায়, আমরা সেই লক্ষ্যমাত্রা পূরণের ধারে-কাছেও নেই। স্বভাবতই এক্ষেত্রে আমরা ব্যর্থ। লজ্জাজনক ভাবে, আফ্রিকার দেশগুলোর তুলনায় ধনী রাষ্ট্রগুলোতে ভ্যাকসিন প্রয়োগের হার সাতগুণ বেশি। আর তাই আমরা এখন সেক্ষেত্রে সমতা আনতে চাই।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে