টাচ নিউজ ডেস্কঃ লাতিন আমেরিকা অঞ্চল থেকে এবার যে চারটি দেশ সরাসরি কাতার বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ পেয়েছে, তাদের মধ্যে অন্যতম ইকুয়েডর। ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, উরুগুয়ের পর চতুর্থ দেশ হিসেবে বিশ্বকাপের টিকিট পেয়েছে ইকুয়েডর। পেরু হয়েছে পঞ্চম, যারা মহাদেশীয় প্লে-অফে অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হবে।

তবে, হঠাৎ করেই ইকুয়েডরের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ তুলেছে চিলি। সেই অভিযোগ প্রমাণিত হলে কাতার বিশ্বকাপ থেকেই বহিষ্কার হয়ে যেতে পারে ইকুয়েডর। পরিবর্তে লাতিন আমেরিকা অঞ্চলের বাছাই পর্বে সপ্তম হওয়া চিলিই সুযোগ পেতে পারে কাতার বিশ্বকাপের মূল পর্বে খেলার। এ নিয়ে বিস্তারিত রিপোর্ট প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ পত্রিকা দ্য ডেইলি মেইল অনলাইন, ফুটবলের জনপ্রিয় ওয়েবসাইট গোলডট কমসহ ইউরোপের প্রথমসারির প্রায় সব মিডিয়া।

কী সেই অভিযোগ? চিলি ফিফার কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে অভিযোগ পেশ করেছে যে, ইকুয়েডরের ডিফেন্ডার বাইরন ক্যাস্টিলো মূলতঃ ইকুয়েডরিয়ান নন। তিনি মূলতঃ কলম্বিয়ান। তার জন্ম তথ্য গোপন করে ইকুয়েডর ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন ক্যাস্টিলোকে নিজেদের পক্ষে খেলিয়েছে। যা অবৈধ।

যদি বাইরন ক্যাস্টিলো সত্যি সত্যি কলম্বিয়ান হয়ে থাকেন, তাহলে বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে তার কোনোভাবেই ইকুয়েডরের হয়ে খেলা বৈধ হবে না। সে ক্ষেত্রে ফিফা তদন্তে যদি এটা প্রমানিত হয়ে যায়, তাহলে নিশ্চিত কাতার বিশ্বকাপ থেকে বহিষ্কার হয়ে যাবে ইকুয়েডর। সে ক্ষেত্রে চিলি’র সামনে কাতার বিশ্বকাপে খেলার সুবর্ণ সুযোগ তৈরি হয়ে যাবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে