টাচ নিউজ ডেস্কঃ লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চত্বরে পোড়ানো হলো বিপুল পরিমাণ ব্যবহার উপযোগী ঔষধ ও চিকিৎসা সামগ্রী।

গত শুক্রবার (৭ জানুয়ারি) বিকালে প্রায় এক বস্তা পরিমাণের ঔষধ ও চিকিৎসা সরঞ্জাম হাসপাতাল চত্বরেই আগুনে পুড়িয়ে ফেলেন পরিচ্ছন্নকর্মীরা। তবে এসব ঔষধ ব্যবহার উপযোগী। প্রায় ঔষধের মেয়াদ রয়েছে ৩ মাস থেকে এক বছর পর্যন্ত। ব্যাবহার উপযোগী এসব মূল্যবান ঔষধ কেনো পুড়িয়ে ধ্বংস করা হলো তার সদুত্তর দিতে পারেনি হাসপাতালটির পরিচ্ছন্নকর্মীরা।

জানা গেছে, হাতীবান্ধা উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের মানুষের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নির্মাণ করে সরকার। সেখানে বিনামূল্যে মানুষকে ঔষধসহ চিকিৎসা সেবা প্রদান করছে সরকার। ঔষধ ও চিকিৎসা সামগ্রী সরকারী ভাবেই প্রদান করা হয়। যা রেজিস্টারের মাধ্যমে ঔষধ ক্রয় ও বিতরণ নির্ধারণ করা হয়ে থাকে। এর মাঝে যখন কোনো ঔষধ মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে যায় তখন কর্তৃপক্ষ তা বাছাই করে সিজার লিস্ট করে আগুনে পুড়ে ধ্বংস করা হয়। আর রেজিস্টারে মেয়াদ উত্তীর্ণের কারণও লিপিবদ্ধ করা হয়।

হাতীবান্ধা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নাঈম হাসান নয়ন বলেন, গত এক সপ্তাহে কোনো ঔষধ মেয়াদ উত্তীর্নের সিজার লিস্ট হয়নি। তবে স্টোর রুম পরিবর্তন করায় উক্ত রুমে আবর্জনাগুলো সরিয়ে পোড়ানো হয়েছে। সেখানে ব্যবহার যোগ্য ঔষধই নয়, মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষধও থাকার কথা নয়। আমার জানা মতে হাসপাতালের স্টোরে কোনো মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষধ নেই।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে