টাচ নিউজ ডেস্কঃ পদ্মা সেতুর বাস্তবায়ন ও উদ্বোধনে এবার আনন্দ অনুষ্ঠান ও প্রীতি সম্মিলনীর আয়োজন করেছে জার্মানির বার্লিন যুবলীগ শাখা। বুধবার বিকেলে রাজধানী বার্লিনের ঐতিহাসিক পুরাতন বিমান বন্দর টেম্পেলহফার মাঠে এ বর্ণিল গ্রীল পার্টি অনুষ্ঠিত হয়।

এদিন পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উদযাপন করতে যোগ দেয় সংগঠনটির নেতাকর্মীনহ জার্মান আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাসহ কয়েকশ প্রবাসী বাংলাদেশি।

এসময় বার্লিন যুবলীগের সভাপতি বদিউজ্জামান বদি ও সাধারণ সম্পাদক আবিদ খান লিখনসহ সংগঠনের অন্যান নেতৃবৃন্দ বলেন পদ্মা সেতু বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার সাহসী প্রচেষ্টা ও প্রত্যয়ের ফসল। বছরের পর বছর কষ্টের পর প্রমত্তা পদ্মার বুকে এমন এক সেতু তৈরির এই সুন্দর স্বপ্ন এখন বাস্তবায়ন হয়েছে।

পদ্মা সেতু এখন শুধু একটি অবকাঠামো নয়, এটা বাংলাদেশের সক্ষমতার প্রতীক, আত্মমর্যাদার প্রতীক, উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রার প্রতিচ্ছবি। দেশের অন্যতম অহংকার ও গৌরবের প্রতীক। আত্মমর্যাদা সম্পন্ন বাঙালির গর্বের আরেকটা নতুন সংযোজনের নাম পদ্মা সেতু। শুধু তাই নয়, ঢাকাসহ সারাদেশের সাথে দক্ষিণাঞ্চলের ২১ জেলার মানুষের যাতায়াতে দীর্ঘদিনের চরম দুর্ভোগের অবসানও হবে। বাঁচবে সময়ও। আর দুই পাড়ে গড়ে উঠবে শিল্প কারখানায়ও। অবহেলিত মানুষ হয়ে উঠবে স্বাবলম্বী।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতা আব্দুল মালেক, মিজানুর হক খান, মাসুদ রহমান, শাহ আলম, নূর ই আলম সিদ্দিকী রুবেল, মোহাম্মদ কুদ্দুস আলী, সুর্য কান্ত ঘোষ, কমিউনিটি ব্যাক্তিত্ব মাস্টার আব্দুর রউফ, খলিলুর রহমান, নাজমুন নেসা পিয়ারী, এরশাদ ইসলামসহ বার্লিন যুবলীগের শেখ রেদোয়ান, স্বপন ভূঁইয়া, মাহবুব আলম, মামুন খান, ফয়সাল আহমেদ, পিন্টু আলম, রেজা আহমেদ, জুবায়ের মোল্লা, আবু তাহেরসহ আরো অনেকে।

সবশেষে সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বন্যার্তদের সাহায্যে একটি তহবিল গঠনের বিষয়ে সম্মত হয় উপস্থিত সকলে। দোয়া করা হয় বন্যায় প্রাণ ও সর্বস্ব হারানো অসহায় মানুষের জন্য। পরে সকলের মাঝে গ্রীল তৈরি খাবার পরিবেশন করা হয়। এসময় আমন্ত্রিত সকলেই অংশগ্রহণ করেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে