টাচ নিউজ ডেস্ক: জার্মানির রাজধানী বার্লিনে বাংলাদেশ দূতাবাসে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান।

রোববার জার্মানিতে বাংলাদেশ দূতাবাসে প্রথম কার্যক্রম চালুর মধ্যে দিয়ে প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য বিশ্বের সর্বাধুনিক ই-পাসপোর্ট পাওয়ার পথ খুলল। দুজন প্রবাসী বাংলাদেশির ই-পাসপোর্ট আবেদন গ্রহণের মাধ্যমে এই কার্যক্রম শুরু করা হয়।

অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার রেমিট্যান্স যোদ্ধা প্রবাসীদের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিচ্ছে। সে লক্ষ্যেই দ্রুততম সময়ের মধ্যে বিদেশের মিশনগুলোতেও এই সর্বাধুনিক কার্যক্রম সম্প্রসারিত করা হচ্ছে। এর ফলে প্রবাসীরা উন্নত বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এগিয়ে যেতে পারবেন এবং তাদের ভ্রমণ আরও সহজ হবে।

ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আইয়ূব চৌধুরী বলেন, সকল প্রস্তুতি থাকলেও মহামারি পরিস্থিতির কারণে দেশের বাইরে বাংলাদেশ মিশনগুলোতে ই-পাসপোর্ট সেবা সম্প্রসারণ শুরু করা সম্ভব হয়নি। আজ জার্মানির দূতাবাসের মাধ্যমে এই কার্যক্রম শুরু হয়েছে এবং ধারাবাহিকভাবে বাকি মিশনগুলোতে দ্রুততম সময়ের মধ্যে চালুর কাজ এগিয়ে চলছে।

জার্মানিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বলেন, ই-পাসপোর্ট চালুর ফলে প্রবাসীদের ভোগান্তি অনেক কমে যাবে। তা ছাড়া, ব্যবসা, শিক্ষা, পর্যটনসহ নানা কাজে বাংলাদেশে বেড়াতে যাওয়া বিদেশিরাও উপকৃত হবেন। এটি দেশের ভাবমূর্তিতে বাড়াতে ভূমিকা রাখবে।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, জার্মানি ছাড়াও চেক রিপাবলিক ও কসোভোতে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিরা নির্ধারিত ফি জমা দিয়ে ই-পাসপোর্ট নিতে পারবেন এই দূতাবাস থেকে। এ ছাড়া, যারা বার্লিন থেকে দূরে থাকেন তারা দূতাবাসের কনসুলার ক্যাম্পে ভ্রাম্যমাণ ইউনিটের মাধ্যমেই ই-পাসপোর্টের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে