টাচ নিউজ ডেস্কঃ বরগুনা শহরের পৌর সুপার মার্কেটে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ২৫০- ২৬০টি ছোট-বড় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পুড়ে গেছে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার (১৭ মে) রাত ১১ টার দিকে এঘটনা ঘটে। স্থানীয় লোকজন, পুলিশ, স্কাউট, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন রেডক্রিসেন্ট, উৎসর্গসহ ফায়ার সার্ভিসের ৮টি ইউনিট প্রায় আড়াই থেকে ৩ ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানান, রাত ১১ টার দিকে মার্কেটের একটি জালের দোকান থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। মুহূর্তেই তা আশপাশের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ছড়িয়ে পড়ে।

ফায়ার সার্ভিস আসার আগেই স্থানীয়রা আগুন নেভানোর চেষ্টা করে। বরগুনা, বেতাগী, আমতলী, পাথরঘাটা, মির্জাগঞ্জসহ ৮টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালায়। বাতাসের কারণে দীর্ঘ প্রচেষ্টায়ও আগুন নিয়ন্ত্রণে না আসায় অন্তত ২৫০–৬০টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পুড়ে গেছে বলে ধারণা করছেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা।

পৌর সুপার মার্কেটের হোমিওপ্যাথী চিকিৎসক ইদ্রিসুর আলম বলেন, কিছু বুঝে ওঠার আগেই আগুন ছড়িয়ে পড়ে আশপাশে। আমার নিজের চেম্বারসহ আমার ৩টি ভাড়া প্রতিষ্ঠান পুড়ে গেছে।

ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক (বরগুনা ও পটুয়াখালী) মো. জাকির হোসেন বলেন, খবর পেয়ে বরগুনা, বেতাগী, আমতলী ও পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জের মোট ৮টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে। প্রায় তিন ঘণ্টা প্রচেষ্টায় আগুন এখন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছে।

তিনি বলেন, আগুনের উৎস খুঁজে বের করতে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিস। এখন পর্যন্ত কি পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা সঠিক ভাবে নিরূপণ করা সম্ভব হয়নি। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ফায়ার সার্ভিস ক্ষয়ক্ষতি নিরুপনের কাজ করছিলো।

বরগুনার সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলী আহম্মেদ বলেন, পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে ওই এলাকার নিরাপত্তা রক্ষা ও আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসকে সহযোগিতা করে। আগুন নেভাতে গিয়ে অন্তত ১০ জন সেচ্ছাসেবক স্থানীয় লোকজন আহত হয়। তাদের উদ্ধার করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। একজনকে গুরুতর আহতাবস্থায় বরিশাল বরিশাল চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে। এসময় বেশ কয়েকজনের মালামাল ও স্বর্ণালংকার ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে