টাচ নিউজ ডেস্ক: বঙ্গবন্ধুর দ্বিতীয় বিপ্লব’ তথা বাকশাল কমসূচী বাস্তবায়ন বিষয়ক আন্তর্জাতিক ভার্চুয়াল সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ১৪ আগস্ট শনিবার বাংলাদেশ সময় রাত ৮ টায়  সেগুনবাগিচা শিশু কল্যাণ পরিষদে ফোজিত শেখ ক্রিয়েশন এর আয়োজনে আন্তর্জাতিক ভার্চুয়াল সেমিনারটি অনুষ্ঠিত হয়।

সেমিনারের সঞ্চালনা করেন এ এফ এম ইসমাইল চৌধুরীর।

সেমিনারে আলোচক হিসেবে যুক্ত হন সভাপতি- বঙ্গবন্ধু পরিষদ, যুক্তরাষ্ট্র শাখা এবং ভাষা ও সাহিত্যে একুশে পদকপ্রাপ্ত ড. নূরুন নবী। তিনি বলেন, স্বাধীন বাংলাকে আধুনিক রাষ্ট্রে পরিণত করতে হলে যা যা দরকার তেমন সব করেছেন।

বঙ্গবন্ধু যখন মনে করলেন প্রশাসন-সহ দলের মধ্যেও বিভক্তি হওয়া শুরু করলো তখনি তিনি বাকশাল নামে একটি কমসূচী ঘোষনা করেছিলেন।সেমিনারে আরো যুক্ত ছিলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট মেম্বার- ড. লিয়াকত হোসাইন মোড়ল।সেমিনারে যুক্ত হয়ে তিনি বলেন, অর্থনৈতিক মুক্তির জন্য, বাকশাল করার আরো উদ্দেশ্য ছিলো রাজনৈতিক ব্যবস্থা, সেবার জন্য যারা রাজনীতি করে তাদেরকে ক্ষমতায় আনতে চেয়েছিলেন এবং সমবায়ের মাধ্যমে মানুষের মুক্তি।সেমিনারে আরো যুক্ত ছিলেন, কানাডা প্রবাসি, শিক্ষাবিদ ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক- ড. মোজাম্মেল খাঁন। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন- বাকশাল হলো রাজনৈতিক, আর্থ সামাজিক, প্রশাসনিক ব্যবস্থা গঠন করে শোষিতের গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করা। সেমিনারে আরো যুক্ত ছিলেন, অষ্ট্রেলিয়া প্রবাসি ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও উদীচীর আহবায়ক কামরুল হাসান খাঁন। তিনি বলেন, এখনো যারা বঙ্গবন্ধুর বিরুদ্ধে অপপ্রচার করে তাদের প্রতি সতর্ক থাকতে হবে, কারণ বঙ্গবন্ধু সকলের।

সেমিনারে আরো যুক্ত ছিলেন, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, কানাডা শাখার সভাপতি, মোহাম্মদ আমিন মিয়া। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর প্রথম বিপ্লব ছিলো স্বাধীনতা।বঙ্গবন্ধুর দ্বিতীয় বিপ্লব ‘বাকশাল’ সৃষ্টি ছিলো যুগপোযোগি ও দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবার উত্তম পদক্ষেপ। এছাড়াও সেমিনারে যুক্ত হয়ে বক্তব্য রাখেন, সহ-সভাপতি, আওয়ামী লীগ, কানাডা শাখার, ইঞ্জিনিয়ার সৈয়দ আব্দুল গাফফার। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর দ্বিতীয় বিপ্লব ছিলো বাংলাদেশের মানুষের একটি মুক্তির সনদ, বাকশাল ছিলো শোষিতের গণতন্ত্র ও অর্থনৈতিক মুক্তি।পরিশেষে সকল আলোচকবৃন্দ ও দর্শকশ্রোতাদের অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়ে সেমিনারের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

এ ভার্চুয়াল সেমিনারটির সার্বিক কারিগরি সহযোগিতায় ছিলেন, মো: মাহিম ইসমাইল চৌধুরী (ধ্রুব) ও আ. জ. ম. মেহেরুন নেছা নাইনা।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে