টাচ নিউজ ডেস্কঃ ইয়াছিন আহমেদ সকাল, ফ্যাশন ডিজাইন এন্ড টেকনোলজিতে অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের অধ্যয়নরত। শান্ত মরিয়ম ইউনিভার্সিটি অব ক্রিয়েটিভ টেকনোলজি। পরিবারে বড় সন্তান। নিজেকে পরিচয় দেন একজন নন বাইনারি হিসেবে ।

সম্প্রতি শুরু হয়েছে FaceRang present মিস্টার এন্ড মিস ফ্রেশলুক season 4 এর অডিশন রাউন্ড. প্রথমবারের মতো নারী এবং পুরুষের পাশাপাশি একজন নন বাইনারি মডেল হিসেবে নিজেকে উপস্থাপন করেন ইয়াছিন আহমেদ সকাল । বিচারকদের আসনে ছিলেন সুপার মডেল মারিয়া কিসপট্টা , মাসুদ জাকারিয়া সাবিন এবং ইমু হাশমি ।

” প্রথমে আমার নাম শুনেই শ্রদ্ধেয় বিচারকমণ্ডলীরা আমাকে কৌতুহলী হয়ে প্রশ্ন করেন । আমি বলি আমি একজন নন বাইনারি । একজন মডেল শুধু নারী কিংবা পুরুষ নয় , যেকোনো লিঙ্গের মানুষ মডেলিং করতে পারেন যদি তার যথেষ্ট যোগ্যতা থাকে । অন্যান্য দেশগুলোতে নারী এবং পুরুষ মডেল এর পাশাপাশি নন বাইনারি মডেলদের খুব সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করা হয় । বাংলাদেশের এখনো পর্যন্ত তেমন কিছুই হয়নি । আমি চাই বাংলাদেশসহ non-binary মডেলদের সুন্দরভাবে উপস্থাপন করা হোক । এবং শুরুটা আমাকে দিয়ে কেন হবেনা ” একেকে বিচারকদের সব প্রশ্নের উত্তর দিয়ে ইয়েস কার্ড জিতে নেই এবং প্রতিযোগিতার পরবর্তী ধাপে উত্তীর্ণ হই । আমার ভীষন ভালো লাগছিল যখন শ্রদ্ধেয় বিচারকমণ্ডলীর আমাকে প্রশ্ন করছিলেন এবং আমার কথি শুনে যখন তাদের মুখে সুন্দর হাসি দেখছিলাম ।

আমার মতে এখনো বাংলাদেশি non-binary মডেল শব্দটি তেমনভাবে অনেকেই বুঝেন না । শব্দটি তেমন পরিচিত না সবার কাছে । আমরা মনে করি শুধু নারী এবং পুরুষরা মডেলিং করবেন । ভিন্ন কিছু দেখলে আমাদের চোখ কপালে উঠে যায় এবং আমরা সেটাকে সহজে গ্রহণ করতে পারিনা । আমি চাই অন্যান্য দেশগুলোর মতো আমাদের দেশেও non-binary মডেলরা সম্মানের সাথে কাজ করুক এবং তাদেরকে নিয়ে কাজ করা হোক ।

পড়াশোনার পাশাপাশি ছোটবেলা থেকেই আমি নাচ এবং আবৃত্তি করি। টুকটাক অভিনয় করা হয় ‌। নাচ এবং আবৃত্তিতে জাতীয় পুরস্কার সহ বেশকিছু অর্জন আছে আমার ।

আমার সব কাজের জন্য আমার পরিবার , বন্ধু এবং শিক্ষকরা আমাকে সবসময় উৎসাহ দেন ।

একে একে প্রতিযোগিতার সবগুলো ধাপ পেরিয়ে এখন আমি টপ 10, আগামী মাসের শুরুতে জমকালো আয়োজনে গ্রেন্ড ফিনালে অনুষ্ঠিত হবে ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে