টাচ নিউজ ডেস্ক: প্রকল্প চলাকালে ঠিকাদারের সঙ্গে প্রমােদ ভ্রমণে বেরিয়ে গােদাগাড়ী পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র মােহাম্মদ ওবাইদুল্লাহ ও উপ-সহকারী প্রকৌশলী সারােয়ার জাহান মুকুল ব্যাপক সমালােচনার মুখে পড়েছেন।

কক্সবাজারের বিলাসবহুল হােটেলের সুইমিংপুলে তাদের জলকেলির ছবি সামাজিক যােগাযােগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ায় তােলপাড় শুরু হয়েছে। ২৩ আগস্ট পৌরসভার মাসিক সভা থাকলেও তা একদিন আগে স্থগিত করে ২২ আগস্ট বিকালের ফ্লাইটে মেয়র ওবাইদুল্লাহ, পৌরসভার উপসহকারী প্রকৌশলী ও ভারপ্রাপ্ত সচিব সারােয়ার জাহান মুকুল এবং ঠিকাদার আকবর আলি রাজশাহী থেকে ঢাকায় যান। ঢাকায় তিনদিন অবস্থানের পর ২৫ আগস্ট বিকালের ফ্লাইটে তারা প্রমােদ ভ্রমণে কক্সবাজারে যান। বিলাসবহুল হােটেলে তারা উঠেন। ২৬ আগষ্ট সকাল থেকে তারা নিজ নিজ ফেসবুক আইডিতে বিভিন্ন স্থানে ঘুরে বেড়ানাের ছবি পােস্ট দেওয়া শুরু করেন। পােস্ট করেন সুইমিং পুলে তাদের জলকেলির ছবি।

কিন্তু প্রকল্প চলাকালে ঠিকাদার ও প্রকৌশলীকে নিয়ে ভারপ্রাপ্ত মেয়রের এমন প্রমােদ | ভ্রমণ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন পৌরবাসী ও  অনেক কাউন্সিলর। নাম প্রকাশ না করে একাধিক কাউন্সিলর  বলেন, অনেকদিন ধরে প্রকৌশলী মুকুলের সহায়তায় প্রায় অধিকাংশ প্রকল্পের একচেটিয়া ঠিকাদারী পেয়ে আসছেন আকবর। আকবরকে সামনে রেখে কাজ নেওয়া দেওয়া হলেও মুকুলও টেন্ডার সিন্ডিকেটের অন্যতম অংশীদার। আন্ডারগ্রাউন্ড পত্রিকায় অতি গােপনে টেন্ডার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে কাজ ভাগ বাটোয়ারা করে আসছে শক্তিশালী টেন্ডার সিন্ডিকেট।

অপরদিকে, নির্বাচিত মেয়র মনিরুল ইসলাম বাবুর মৃত্যুর পর ভারপ্রাপ্ত মেয়র ওবাইদুল্লাহ ভুয়া প্রকল্প দেখিয়ে বালুঘাট ইজারার ৭১ লাখ টাকা ভাগবাটোয়ারা করে নিয়েছেন। এ টাকার ভাগ পেয়েছেন প্রকৌশল মুকুলও। তবে এসব অভিযােগ তারা অস্বীকার করেছেন।

ঠিকাদার আকবর ও প্রকৌশলী মুকুলের সঙ্গে প্রমােদ ভ্রমণে যাওয়ার কথা প্রথমে ভারপ্রাপ্ত মেয়র ওবাইদুল্লাহ অস্বীকার করেন। ফেসবুকে তাদের ছবি থাকার কথা বলার পর তিনি তা স্বীকার করেন।উপ-সহকারী প্রকৌশলী মুকুলও প্রথমে অস্বীকার করেন। আর এ বিষয়ে কথা বলতে অস্বীকার করেন ঠিকাদার আকবর।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রাজশাহীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ও স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক (ডিডি-এলজি) শাহানা  আখতার জাহান বলেন, ঠিকাদার নিয়ে মেয়র ও প্রকৌশলীর প্রমােদ ভ্রমণে বের হওয়া নৈতিকতাবিরােধী ও  বিধিসম্মত নয়। এ নিয়ে যে কেউ প্রশ্ন তুলতেই পারেন। যেখানে । ঠিকাদার বড় প্রকল্পের কাজ করছেন। তিনি আরও বলেন, তথ্য  প্রমাণসহ কেউ অভিযােগ করলে ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হবে। 

উল্লেখ্য, ২১ এপ্রিল ভারতের ব্যাঙ্গালােরে চিকিৎসাধীন অবস্থায়  মেয়র বাবু মারা যান। এরপর থেকে প্যানেল মেয়র-১ ওবাইদুল্লাহ  ভারপ্রাপ্ত মেয়র হিসাবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। পৌর  এলাকায় প্রায় ১২ কোটি টাকা ব্যয়ে সড়ক ও ড্রেনেজ উন্নয়নের কাজ চলছে। প্রকল্পটি ঠিকাদার আকবর আলির প্রতিষ্ঠান সােনিয়া  এন্টারপ্রাইজ বাস্তবায়ন করছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে