টাচ নিউজ ডেস্কঃ  ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিভিন্ন কেন্দ্র দখল,জাল ভোট প্রদান, ভোট গননায় জালিয়াতি, আনারস মার্কার এজেন্টদেরকে কেন্দ্রের রেজাল্ট শীট না দেয়া, ফলাফল শীট পরিবর্তন,০৩টি কেন্দ্রের রেজাল্ট রাত ০৯ টা পর্যন্ত ঘোষনা না করার অভিযোগে ফলাফল বাতিল, গ্যাজেট স্থগিতকরনের দাবিতে বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আবদুস সামাদ আজাদ ।

আবদুস সামাদ আজাদ তার লিখত বক্তব্যে বলেন, চাঁদপুর জেলাধীন কচুয়া উপজেলার ৫নং সহদেবপুর (পঃ)ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান এবং গত ০৫/০১/২০২২ইং তারিখে অনুষ্ঠিত উক্ত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে আনারস প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করি।

অত্র ইউনিয়নে মোট ১০টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহন করা হয় যার মধ্যে ০৬টি কেন্দ্রে ব্যাপক অনিয়ম,জাল ভোট প্রদান, আমার মার্কা আনারসের এজেন্টদেরকে মারধর করে কেন্দ্র্র থেকে বের করে দিয়ে ভোট গ্রহন, রাত ৯ টা পর্যন্ত ০৩ টি কেন্দ্রের ফলাফল ঘোষনা না করেকচুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জনাব আইয়ুব আলী পাটওয়ারীর নেতৃত্বে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সোহরাব হোসেন সোহাগ, কচুয়া উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান জনাব মোঃ শাহজাহান,৫নং সহদেবপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহসভাপতি মো: মফিজুর রহমান,পিতা: জাফর আলী, ৫নং পঃ সহদেবপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সদস্য মামুনুর রহমান ভুইয়া, নৌকা মার্কার প্রার্থী মোঃ আলমগীর হোসেন, যুবলীগ নেতা আকতার মোল্লা, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আনোয়ার হোসেন(গ্রাম-মালচোয়া), মো: রকিব উদ্দিন ভুইয়া (গ্রাম: নাংলা) সহ নৌকা মার্কার উশৃংখল কর্মীরা সংঘবদ্ধভাবে রিটার্নিং অফিসারের চারিদিকে জড়ো হয়ে ও রাজনৈতিক চাপ প্রয়োগ করে রিটার্নিং অফিসার জনাব এ এইচ এম শাহরিয়ার রসুলকে দিয়ে রাত ০১ টায় ফলাফল ঘোষনা করাতে বাধ্য করেন।

কচুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আইয়ুব আলী পাটওয়ারীর নেতৃত্বে নির্বাচনের পুরোদিন নৌকা মার্কার বিভিন্ন উশৃঙ্খল নেতাকর্মী ও বহিরাগত সশস্ত্র মাস্তান বাহিনী বিভিন্ন কেন্দ্রে হানা দিয়ে আমার এজেন্ট ও সমর্থকদের মারধর ও প্রাননাশের হুমকি, ভোটারদেরকে প্রভাবিত করার জন্য টাকা প্রদান, ভোটারদেরকে আনারসে ভোট দিতে বাধা প্রদান, জাল ভোট প্রদান, কেন্দ্রে আমার এজেন্ট বসতে না দেয়া,ব্যালট পেপার ছিনতাইয়ের চেষ্টাসহ নানা অনিয়ম ও জালিয়াতি করেন ।

আইয়ুব আলী পাটওয়ারী যিনি নির্বাচনের দিন বিভিন্ন কেন্দ্রে ভোটারদেরকে প্রভাবিত করার জন্য টাকা প্রদান, ভোটারদেরকে আনারসে ভোট দিতে বাধা প্রদান, উশৃঙ্খল নেতাকর্মী ও বহিরাগত সশস্ত্র মাস্তান বাহিনী নিয়ে বিভিন্ন কেন্দ্রে হানা দিয়ে ব্যালট পেপার ছিনতাইয়ের চেষ্টা করেন এবং সর্বশেষ রিটার্নিং অফিসারের রুমে অন্যান্য নেতাকর্মী ও বহিরাগত উশংখল লোক নিয়ে উর্ধ্বতন ব্যক্তিকে ফোন দিয়ে রিটার্নিং অফিসারকে চাপ প্রয়োগ করে নৌকার পক্ষে ফলাফল ঘোষনা করাতে বাধ্য করেন। দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করার পরও আমাকে চূড়ান্ত রেজাল্ট শীট দেয়া হয়নি। পরিস্থিতির ভয়ানক ভাবে অবনতি ঘটলে, রিটানিং অফিসারের অসহায়ত্ব দেখে এবং আমার জীবনের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে চূড়ান্ত ফলাফল না নিয়ে আমি কন্ট্রোল রুম ত্যাগ করে আমার নির্বাচনী এলাকায় চলে আসতে বাধ্য হই এবং পরে রাত ০১ টায় খিলমেহের কেন্দ্রের ৪৪ ভোট কমিয়ে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মো: আলমগীরকে বিজয়ী ঘোষনা করা হয়।

গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জনগণের সমর্থন নিয়ে নির্বাচিত হয়ে ৫বছর সফল ভাবে ইউনিয়ন এর সকল কাজ পরিচালিত করি। আমার ইউনিয়ন পরিষদের ৯টি ওয়ার্ড এর সকল উন্নয়ন কর্মকান্ড ওয়ার্ডে নির্বাচিত মেম্বার, সুশীল সমাজ, মসজিদের ইমাম, স্কুলের শিক্ষক ও গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে সম্পৃক্ত করে উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড পরিচালনা করি।কিন্তু অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় আমার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে কিছু সংখ্যক লোক আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের নেতিবাচক কর্মকান্ড এবং নির্বাচনের আচরন বিধি পরিপন্থি কাজকর্ম করে আসছিল। আমি বিভিন্ন সময়ে এ সব অভিযোগগুলো আমার রিটার্নিং অফিসার, কচুয়া উপজেলা নির্বাচন অফিসার, জেলা নির্বাচন অফিসার, ইউএনও মহোদয়,কচুয়া ও কচুয়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মহোদয়কে অবগত করি।

আজকে এই সংবাদ সংম্মেলনের মাধ্যমে আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীগনতন্ত্রের মানসকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা, মাননীয় প্রধান নির্বাচন কমিশনার, বিশেষ করে আধুনিক কচুয়ার রুপকার মাননীয় সাংসদ জননেতা ড. মহীউদ্দীন খাঁন আলমগীর, মাননীয় ডিসি মহোদয়,চাঁদপুর, জেলা নির্বাচন অফিসার,চাঁদপুর,রিটার্নিং অফিসার জনাব এ এইচ এম শাহরিয়ার রসুল,উপজেলা নির্বাচন অফিসার,কচুয়া,চাঁদপুর এর কাছে ন্যায় বিচার প্রার্থনা করছিএবং গত ০৫/০১/২০২২ ইং তারিখে অনুষ্ঠিত চাঁদপুর জেলাধীন কচুয়া উপজেলার ৫নং সহদেবপুর (পঃ)ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিভিন্ন কেন্দ্র দখল,জাল ভোট প্রদান, ভোট গননায় জালিয়াতি, আনারস মার্কার এজেন্টদেরকে কেন্দ্রের রেজাল্ট শীট না দেয়া, ফলাফল শীট পরিবর্তন,০৩টি কেন্দ্রের রেজাল্ট রাত ০৯ টা পর্যন্ত ঘোষনা না করার অভিযোগে ফলাফল বাতিল,গ্যাজেট স্থগিতকরন ও কয়েকটি কেন্দ্রে নুতন নির্বাচন অনুষ্ঠানসহ উল্লেখিত অভিযোগগুলোর যথাযথ তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহন করার জন্য আকুল আবেদন জানাচ্ছি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে