টাচ নিউজ ডেস্কঃ পাত্র পছন্দ ছিল না পাত্রীর। বাড়িতে জানানোর পরেও পাত্রীর সেই কথা শুনতে চাননি পরিবারের কোনো সদস্য। তাই হবু বরের গলায় ছুরি চালিয়ে তাকে গুরুতরভাবে জখম করেছেন এক তরুণী।

ভারতের অন্ধ্র প্রদেশের বিশাখাপত্তনমের চোডাভরম এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। বুধবার দেশটির গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য তুলে ধরা হয়েছে।

অভিযুক্ত পাত্রীর নাম পুষ্পা। এ ঘটনায় খুনের চেষ্টার অভিযোগ স্বীকার করেছেন ওই পুষ্পা। পাত্র রামু নাইডু কাউন্সিল অব সায়েন্টিফিক অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিয়াল রিসার্চের (সিএসআইআর) একজন বিজ্ঞানী।

জানা যায়, রামু নাইডুর সঙ্গে তার বিয়ে ঠিক করেছিল পরিবার। অনেক ছেলে দেখার পর রামুকেই পাত্র হিসেবে বেশি নিয়েছিল পুষ্পার পরিবার। কিন্তু প্রথম থেকে সেই বিয়েতে রাজি ছিলেন না পুষ্পা। পাত্রকে নিয়ে নিজের অপছন্দের কথা পরিবারকে জানালেও অবশ্য তাতে কোনও কাজ হয়নি। অগত্যা পুষ্পার অসম্মতিতেই সম্বন্ধ পাকা করে ফেলে তার পরিবার। বিয়ের দিনক্ষণও ঠিক হয়ে যায়। সামনের মাসেই তাদের বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। তাই বিয়ের জন্য কেনাকাটা এবং অন্যান্য তোড়জোড় শুরু হয়ে গিয়েছিল।

হবু বর এবং দু’পক্ষের পরিবার বিয়ে নিয়ে অনেক পরিকল্পনা সেরে ফেললেও কোনোভাবে এই বিয়ে থেকে নিজেকে বাঁচাতে চাইছিলেন হবু কনে। তারপরে হবু বরকে পৃথিবী থেকে সরিয়ে পরিকল্পনা করে বসে কনে। এজন্য পাত্রকে একটি সারপ্রাইজ ডেটের জন্য ডাকে পাত্রী। তারপরে ছুরি বের করে হবু বরের গলায় চালিয়ে দেয় পুষ্পা।

এ ঘটনায় যুবকের গলায় গুরুতর ক্ষত তৈরি হয়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে ভর্তি করা হয় হাসপাতালে। এখনও ওই যুবক হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। এর পরেই পুলিশ পুষ্পাকে গ্রেফতার করে। পুলিশি জেরায় পুষ্পা স্বীকার করেছে পাত্র পছন্দ না হওয়ার কারণেই সে এই কাণ্ড ঘটিয়েছে।

স্থানীয় পুলিশের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা এস গৌতমী বলেন, পুষ্পার বিরুদ্ধে আগে অপরাধমূলক কোনো কাজের অভিযোগ থানায় নেই।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে