টাচ নিউজ ডেস্কঃ দক্ষিণ এশিয়ার মুসলিম অধ্যুষিত রাষ্ট্র পাকিস্তানে বিচ্ছিন্নতাবিরোধী অভিযানে অন্তত ২০ সন্ত্রাসীর প্রাণহানি ঘটেছে। গত বুধবার দেশটির দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় বেলুচিস্তান প্রদেশে দুটি সেনা চৌকিতে হামলার পর পাক সেনাবাহিনীর সামরিক অভিযান ও পাল্টা হামলায় এসব সন্ত্রাসী প্রাণ হারান।

শনিবার (৫ ফেব্রুয়ারি) বিবৃতির মাধ্যমে দেশটির সামরিক বাহিনীর মিডিয়া বিভাগ থেকে এসব তথ্য নিশ্চিত করা হয় বলে প্রতিবেদন প্রকাশ করে জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা।

বিবৃতিতে জানানো হয়, বেলুচিস্তানের পাঞ্জগুর ও নোশকিতে বিচ্ছিন্নতাবিরোধী অভিযানে মোট ২০ সন্ত্রাসী প্রাণ হারিয়েছেন। নিরাপত্তা বাহিনী এরই মধ্যে নিজেদের অভিযানটি সম্পন্ন করেছে।

এর আগে গেল বুধবার বেলুচিস্তানে দুটি সামরিক ঘাঁটিতে আক্রমণের ঘটনায় ২০ জন প্রাণ হারিয়েছেন। নিহতদের মধ্যে সাতজন সেনা সদস্য এবং ১৩ জন ছিলেন সন্ত্রাসী। সাম্প্রতিক বছরগুলোর মধ্যে সেটিই ছিল দেশটির সামরিক বাহিনীর ওপর সবচেয়ে বড় হামলা।

বিশ্লেষকদের মতে, পাঞ্জগুর ও নোশকি জেলায় চালানো ওই আক্রমণের দায় স্বীকার করে বেলুচিস্তান ন্যাশনালিস্ট আর্মি (বিএলএ)। বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনটি মাত্র কিছুদিন আগে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল।

এ দিকে পাক সেনাবাহিনীর ওই বিবৃতির পর শনিবার রাতে পৃথক বিবৃতি দিয়েছে বিএলএ। সেখানে সামরিক বাহিনীর হামলায় ১৬ জন নিহত হওয়ার কথা জানানো হয়। তবে বিবৃতিতে তারা আরও দাবি করেছে যে, তাদের সকল লক্ষ্য অর্জিত হয়েছে।

এর আগে গেল জানুয়ারি মাসের শেষ দিকে গোয়াদার বন্দরের কাছে বিদ্রোহীদের হামলায় পাকিস্তানের ১০ সৈন্য নিহত হন। ভূ-রাজনৈতিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ এই বন্দর নির্মাণ করছে এশিয়ার পরাশক্তি চীন। বেল্ট অ্যান্ড রোড ইনিশিয়েটিভের (বিআরআই) এই প্রকল্পে চীন ৬০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করছে।

উল্লেখ্য, এশিয়ার পরাশক্তি চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সঙ্গে বৈঠকের উদ্দেশে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এক রাষ্ট্রীয় সফরে বুধবার (২ ফেব্রুয়ারি) বেইজিং গিয়েছেন। তিনি দেশ ছাড়ার কয়েক ঘণ্টা আগেই সন্ত্রাসীদের ওই আক্রমণের ঘটনাটি ঘটেছিল।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে