টাচ নিউজ ডেস্কঃ পশ্চিমা বিশ্বের নিষেধাজ্ঞা রাশিয়াকে দমাতে পারবে না বলে আবারও হুঁশিয়ার করেছে মস্কো। এমনকি পাল্টা জবাবে বিভিন্ন দেশের যেসব ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান রাশিয়াতে বিনিয়োগ করেছেন তাদের সেই বিনিয়োগ প্রত্যাহার ঠেকাতে পদক্ষেপ নেওয়ার কথা জানিয়েছে ক্রেমলিন।

ইউক্রেনে রুশ সামরিক অভিযানের পর থেকে রাশিয়ার বিরুদ্ধে একের পর এক নিষেধাজ্ঞা দিয়েই চলেছে পশ্চিমা বিশ্ব। তবে হুমকি-ধামকি আর নিষেধাজ্ঞা রাশিয়াকে ইউক্রেনের বিষয়ে তাদের অবস্থান থেকে সরাতে পারবে না বলে আবারও হুঁশিয়ার করেন ক্রেমলিন। খবর রয়টার্স।

বুধবার (২ মার্চ) এক সংবাদ সম্মেলনে এমনটাই জানিয়েছেন ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকোভ।

এমনকি নিষেধাজ্ঞার পাল্টা পদক্ষেপ হিসেবে বিভিন্ন দেশের যেসব ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান রাশিয়ায় বিনিয়োগ করেছেন, তাদের সেই বিনিয়োগ প্রত্যাহার ঠেকানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুতিন সরকার। যুক্তরাষ্ট্র ও দেশটির কয়েকটি প্রতিষ্ঠান রাশিয়া থেকে বিনিয়োগ প্রত্যাহারের পর এই পদক্ষেপ নিচ্ছে মস্কো বলে জানান তিনি।

এর আগে এ বিষয়ে একটি ডিক্রি জারি করা হচ্ছে বলে জানান রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মিখায়েল মিশুস্তিন। বিদেশি বিনিয়োগকারীরা যাতে তাদের বিনিয়োগ ও সম্পত্তি রাশিয়া থেকে সরিয়ে নিতে না পারেন, সে জন্য সাময়িক নিষেধাজ্ঞা জারি করে একটি প্রেসিডেন্সিয়াল ডিক্রির খসড়া প্রস্তুত করা হয়েছে।

এদিকে ইউক্রেনে রাশিয়ার চলমান হামলা বন্ধ না হলে দেশটিকে করুণ পরিণতি ভোগ করতে হবে বলে হুঁশিয়ার করেছেন জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শলজ। যুদ্ধে রাশিয়ার পরমাণু অস্ত্র ব্যবহার নিয়েও প্রেসিডেন্ট পুতিনকে সতর্কবার্তা দেন জার্মান চ্যান্সেলর। ইউক্রেনের সাধারণ নাগরিকদের ওপর রাশিয়া পরমাণু অস্ত্র নিক্ষেপ করার কোনো শঙ্কা আছে কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে শলজ বলেন, এমন আশঙ্কাই করছেন তারাও।

ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক অভিযানের পর প্রায় প্রতিদিনই দেশটিতে বাড়ছে রুশ সৈন্য মোতায়েন। একের পর এক রুশ বাহিনীর বিধ্বংসী হামলায় ধ্বংস হচ্ছে দেশটির গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাগুলো। এ অবস্থায় রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে অবিলম্বে যুদ্ধ বন্ধ ও সেনাদের ফিরিয়ে নিয়ে আলোচনায় বসার আহ্বান জানিয়েছেন জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শলজ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে