লেখক: কামরুল হাসান সোহাগ

একজন কিশোরীর আত্মহত্যা
ফেসবুকের কর্মকর্তাকে লিখেছি।

ফেসবুক মুখপাত্র শাবহানাজ রশীদকে

অদ্য সেপ্টেম্বর বার, বিশ বিশ
বাংলাদেশের দৈনিক
প্রথম আলোর বরাত দিয়ে বলছি
কিশোরী বিউটি মন্ডলের হাতে
যখন আত্মহত্যার রজ্জু
কেঁপে ওঠে ওর কোমলমতি হাত দুটি
অভিমানের ভ্রুকুটি ভরা ছিল ফেসবুকে
তাই নবনিযুক্ত কর্মকর্তা
শাবহানাজ রশীদ কে বলছি
আপনাকে অভিনন্দন

ডিজিটাল নারী জাগরনের একজন পথিকৃত
আপনার এমনি মাধ্যম
যার বদৌলতে সারাদিন ক্ষনে ক্ষনে
মজে থাকি আড্ডাতে কখনো বা লিখি
প্রকাশনার জন্য করতে হয় না অপেক্ষা
ভালই তো বেশ
কষ্ট পাই বিউটিদের কথা ভেবে
হারিয়েছি দাদাদের গল্পের আসর
চৌরাস্তায় চায়ের আড্ডা
নেই সেই প্রানের জোয়ার
মনে হয় কিছুটা এলোমেলো

কেন কিশোরী লাশ হয়ে ঝুলে থাকে
বিবেকের কাছে কোমল মনের পতন
একটি মিথ্যা ছবি পোস্ট ই কি শুধু কারন
তার ছবির সাথে আরেকজনের নগ্ন ছবি
সেটে দিয়ে মদন কত না খুশিতে হাসে
বসে বসে তামাশা দেখে
আর কত হবে অসময়ে ঝরা ফুল
প্রযুক্তির কত না গুন
এমন ব্ল্যাকমেইলিং যদি
প্রযুক্তি দিয়ে বন্ধ করা যেত
আপনি ই পারবেন হবেন সকলের সমাদৃত
কেনইবা কিশোর এমন হল
যাদের সারাদিন যায় কেটে।

তর্জনী ঘষে ঘষে
শিল্প, সাহিত্য বোধহীন
কুরুচিপুর্ন রং তামাশা দেখে দেখে
প্রজন্মের মানসিকতার এমনি অধপতন
দায়ভার আমাদের সকলের
যার পরিনতি এমন নির্মমতার স্বাক্ষী হল
সাতক্ষীরার নোনা জল সিক্ত তালা
স্নেহ মমতা ভালবাসার ভান্ডারে
এটে দিল কামারী তালা।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে