টাচ নিউজ ডেস্ক: সরকার পেঁয়াজের দাম কেজি প্রতি ৪০ টাকা নির্ধারণ করার একদিনের মাথায় নাটোরে আরও ১ থেকে ২ টাকা দাম কমেছে। সরকারের বেধে দেওয়া দামে কৃষকরা লাভের আশা করলেও ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের কারণে তাদের লোকসান গুনতে হচ্ছে। তবে ব্যবসায়ীদের দাবি, হাট থেকে কিনে খুচরা বাজারে ৪০ টাকায় বিক্রি করতে হবে। তাই লাভ হাতে রেখে তারা পেঁয়াজ কিনছেন।

কৃষকের নায্যমূল্য নিশ্চিত করতে সরকার প্রতিকেজি পেঁয়াজের মূল্য ৪০ টাকা নির্ধারণ করেছে। এ দামে লাভের আশায় নাটোরের বৃহত্তম পেঁয়াজের হাট নলডাঙ্গায় পর্যাপ্ত পরিমাণ পেঁয়াজ সরবরাহ করেন কৃষকরা। সোমবার কৃষকরা প্রতিকেজি পেঁয়াজ ২৮ থেকে ৩২ টাকা বিক্রি করলেও মঙ্গলবার তা নেমে আসে ২৫ থেকে ৩০ টাকায়। এতে কৃষকদের মাঝে দেখা দিয়েছে হতাশা।

কৃষকদের দাবি, প্রতিকেজি পেঁয়াজ উৎপাদনে তাদের খরচই হয়েছে প্রায় ৩০ টাকা। অথচ ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের কারণে ন্যায্যমূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন তারা। তাই বাজার মনিটরিংয়ের জন্য সরকারের কাছে দাবি তাদের।

তবে ব্যবসায়ীদের দাবি, সরকার খুচরা পর্যায়ে ৪০ টাকা নির্ধারণ করছে। তাই তারা লাভ রেখে পাইকারি দরে পেঁয়াজ কিনছেন।

এই মৌসুমে নলডাঙ্গায় অন্য হাটগুলোর তুলনায় পেঁয়াজ সরবরাহ হয়েছে বেশি। অতিরিক্ত সরবরাহের কারণেই ব্যবসায়ীরা দাম কমিয়ে দিয়েছেন বলে দাবি করেন আড়তদার রানা আহমেদ।

চলতি বছর নাটোর জেলায় প্রায় ৮০ হাজার মেট্রিক টন পেঁয়াজ উৎপাদনের আশা করছে কৃষি বিভাগ। আর এ পর্যন্ত প্রায় ৮৫ ভাগ পেঁয়াজ উত্তোলন হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে