টাচ নিউজ ডেস্ক: কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে রয়েছে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটস (এআরএসপিএইচ) এর চেয়ারম্যান ও রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহর লাশ। বৃহস্পতিবার (৩০ সেপ্টেম্বর)  বিষয়টি নিশ্চেত করেছেন কক্সবাজারের পুলিশ সুপার মো. হাসানুজ্জামান।

উখিয়া কুতুপালংয়ের লম্বাশিয়া ক্যাম্পে এশার নামাজ শেষ করে তার পরিচালিত সংগঠন আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটস (এআরএসপিএইচ) এর অফিসে অবস্থানকালে ২০/২৫ জনের একটি বন্দুকধারী দল তার ওপর ঝাপিয়ে পড়ে। ওই অফিসে কর্মরত অন্যান্যদের মারধর করে ছেড়ে দিলেও মুহিবুল্লাহর বুকে ৫ রাউন্ড গুলি চালায় সন্ত্রাসীরা। এরমধ্যে ৩টি গুলি মুহিবুল্লাহর বুকে লেগে মৃত্যু হয় তার।

মুহিবুল্লাহর ছোট ভাই হাবিবুল্লাহ বলেন, ‘রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠির অধিকার আদায় ও রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন সম্পর্কে মুহিবুল্লাহ কথা বলায় তার ওপর ক্ষুব্ধ হয় রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বিরোধী সন্ত্রাসীরা। এই ক্ষোভে তাকে গুলি করে তারা।

মর্গ সূত্রে জানা যায়, বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) দিবাগত মধ্যরাতে ময়নাতদন্তের জন্য তার লাশটি মর্গে আনা হয়।নিহত মুহিবুল্লাহর লাশের ময়নাতদন্তের জন্য কার্যক্রম চলমান রয়েছে। আলামত সংগ্রহ এ যাবতীয় কাজ শেষ হলে প্রশাসনকে অবগত করবেন তারা।

পুলিশ সুপার মো. হাসানুজ্জামান জানান, এ ঘটনায় এখনো মামলা হয়নি। লাশ মর্গে আছে এবং পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে