ধ্রুবতারা
ড. রফিকুল ইসলাম

অন্ধকারের মতোই বন্ধ স্পষ্টতা,
আলো নেই মধ্যগগনে;
উত্তাপে ঝলসে যাওয়া হৃদপিণ্ড ,
বিছানো শীতলপাটির মগনে।

আমিও আত্মঘাতী হতে পারতাম,
নিকষ আঁধারের রাতে;
রক্ষের কবজ বক্ষে জড়িয়ে,
হৃৎপিণ্ড হরন হতে।

স্বেচ্ছাচারীতার স্বাদ পেয়ে ক্ষণে,
অনিরুদ্ধ মৃত্যুর দাম;
নির্ভেজাল প্রেমে লেপে দিতুম,
ঘন্টা বাজিয়ে অবিরাম।

জ্যোৎস্না রাতে সঙ্গীর সন্ধানে,
অন্ধকার হাতড়ে পাড়ি;
অচৈতন্যকে চির বিদায় দেয়ার,
বিষন্ন অথৈ আহাজারি।

অধরের বিষ সাদরে রাখিয়া,
পশমী বুকের ঠাঁয়;
সম্ভাষণ জানিয়ে হৃদয়ের ব্যাথা,
সুদূর আশাতুর মমতায়।

একখণ্ড নির্ভেজাল প্রেমের তেষ্টা,
ছিল ব্যাথাতুর বেদনায়
ভণিতাকে ভীষণ বোকা বানিয়ে
সন্ধিক্ষণের সঙ্গী সাধনায়।

হৃৎপিণ্ডে হাহাকার করে উঠছে,
ছাতি ফাঁটছে তেষ্টায়;
স্বর্গীয় ভালোবাসা সমুন্নত সেদিনই,
দুই ধ্রুবতারার চেষ্টায়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে