টাচ নিউজ ডেস্কঃ নেত্রকোনার মদন উপজেলায় ধান কেটে না দেওয়ায় খাইরুল ইসলাম নামের এক শ্রমিককে কাঁচি দিয়ে গলা কেটে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। খাইরুল ইসলাম (২৯) উপজেলার নায়েকপুর ইউনিয়নের মাখনা গ্রামের আব্দুল ছালেকের ছেলে। তিনি ধান কাটার শ্রমিক হিসেবে কাজ করতেন। এছাড়া স্থানীয় একটি মসজিদে ইমামতিও করতেন খাইরুল।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মাখনা গ্রামের এখলাছ ও এলাই মিয়া দুই ভাই। তাদের মধ্যে এখলাছ মিয়া তার বোনের কাছ থেকে জমি কিনে নিজের ৪০ শতাংশ জমি বিক্রি করে দেন প্রতিবেশি দুই চাচাতো ভাই দুলাল মিয়া ও হক মিয়ার কাছে। ওই ক্রয়কৃত জমি দুলাল ও হক মিয়া আবাদ করলে এলাই মিয়া জমির অর্ধেক অংশ নিজের দাবি করে বাধা দেয় ধান কাটতে।
দুলাল ও হক মিয়া খাইরুলের বাড়িতে গিয়ে তাদের জমির ধান কেটে দিতে বলেন। কিন্তু খাইরুল বিরোধপূর্ণ জমির ধান কাটবেন না বলে জানিয়ে দেন।
এদিকে, বৃহস্পতিবার সকালে হক মিয়ার শ্যালক লিয়াকত ও লিয়াকতের ছেলে শফিকুল মাঠে গিয়ে দেখেন খাইরুল অন্য জনের জমির ধান কাটছে। এসময় তাদের ধান না কাটায় শ্রমিক খাইরুলের সাথে বাদানুবাদে লিপ্ত হয়ে এক পর্যায়ে হাতে থাকা কাঁচি দিয়ে গলায় পোচ দিলে ঘটনা স্থলেই খাইরুলের মৃত্যু হয়। পরে দ্রুত অন্য শ্রমিকরা খাইরুলকে উদ্ধার করে মদন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

মদন থানার ওসি মোহাম্মদ ফেরদৌস আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে