টাচ নিউজ ডেস্ক: বাংলাবাজার-শিমুলিয়া রুটে পণ্যবাহী ফেরি চলাচল নিষেধা তাই পারাপারের অপেক্ষায়  থাকা গাড়িগুলো সব ভির করছে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ঘাটে। এতে ঘাট থেকে প্রায় ১৩ কিলোমিটার পর্যন্ত যানজট তৈরি হয়েছে। দীর্ঘ জ্যামের কারণে যানবাহনের চালক ও সহকারীরা পড়েছেন ভোগান্তি চরমে।

এদিকে দীর্ঘদিন পর রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ও মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া নৌপথে লঞ্চ চলাচল শুরু হয়েছে। তবে ভরা বর্ষার কারণে অনেকে ঝুঁকি এড়াতে লঞ্চের পরিবর্তে ফেরিতে চলাচল করছে। এ কারণে ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীদের ভিড় দেখা যায়।

সারা দেশে বুধবার (১১ আগস্ট) থেকে গণপরিবহন চলাচলের সিদ্ধান্তের পর থেকে ঘাট এলাকায় যানবাহনের সংখ্যা বাড়ে। তবে বৃহস্পতিবার (১২ আগস্ট) সকাল থেকে ঘাট এলাকায় যাত্রীবাহী বাসের সারি দেখা যায়নি।

বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত ঘাট এলাকায় অবস্থান করে দেখা যায়, দৌলতদিয়া ফেরিঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের বাংলাদেশ হ্যাচারিজ পর্যন্ত চার কিলোমিটার এলাকায় সড়কের দুই লাইনে প্রায় ৪০০ পণ্যবাহী ট্রাক ও কিছু যাত্রীবাহী বাস ফেরি পারের জন্য অপেক্ষা করছে। এর মধ্যে এক সারিতে বাস ও আরেক সারিতে ট্রাক দেখা যায়।

এসব ট্রাক গতকাল রাতে দৌলতদিয়া ঘাটে এসে পৌঁছালেও এখন পর্যন্ত ফেরি পার হতে পারেনি। দীর্ঘ সময় ধরে মহাসড়কে আটকে থাকতে হচ্ছে চালক ও শ্রমিকদের। ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন তারা। টয়লেট, পানি ও খাবারের কোনো ব্যবস্থা না থাকায় তাদের ভোগান্তি চরমে। এ ছাড়া সময়মতো মালামাল পরিবহন করতে না পেরে লোকসান গুনতে হচ্ছে।

অন্যদিকে ঘাট এলাকায় যানজট কমাতে দৌলতদিয়া ঘাট থেকে ১৩ দশমিক ৫ কিলোমিটার দূরে রাজবাড়ী-কুষ্টিয়া আঞ্চলিক মহাসড়কের গোয়ালন্দ মোড় থেকে আহলাদিপুর জুট মিল পর্যন্ত চার কিলোমিটার এলাকায় প্রায় ৪০০ পণ্যবাহী ট্রাক ও কার্ভাড ভ্যানকে আটকে রাখা হয়েছে, যা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পার করা হচ্ছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে