টাচ নিউজ ডেস্ক: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তঃহল বক্তৃতা প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে। গতকাল

বুধবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে এ প্রতিযোগীতার শুভ উদ্বোধন করা হয়।

বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে ‘আমার বঙ্গবন্ধু’ শীর্ষক এ প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এ. কে. আজাদ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল। বিশেষ অতিথি ছিলেন অ্যাসোসিয়েশনের সিনিয়র সহসভাপতি মোল্লা মো. আবু কাওছার এবং সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম আফজালুর রহমান বাবু।

অনুষ্ঠানে অ্যাসোসিয়েশনের সিনিয়র সহসভাপতি মোল্লা মো. আবু কাওছার বলেন,  বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, ‘শুধু বি.এ., এম.এ. পাস করে লাভ নেই। আমি চাই কৃষি কলেজ, কৃষি স্কুল, ইঞ্জিনিয়ারিং স্কুল ও কলেজ, যাতে সত্যিকারের মানুষ পয়দা হয়। বুনিয়াদি শিক্ষা নিলে কাজ করে খেয়ে বাঁচতে পারবে।’ তিনি মানবসম্পদের উন্নয়নের সার্থেই এই কথা বলেছিলেন।

তিনি বলেন, উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে মানবসম্পদ উন্নয়নের বিকল্প নেই তা বঙ্গবন্ধু আমাদের শিখিয়ে গেছে।

অ্যাসোসিয়েশনের প্রচার ও যোগাযোগ সম্পাদক কাজী মোয়াজ্জেম হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন, বঙ্গবন্ধু হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. আকরাম হোসেন।

প্রতিযোগিতার অংশ হিসেবে বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি জসীম উদ্‌দীন হলে বক্তৃতা প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ আব্দুর রশীদের সভাপতিত্বে প্রতিযোগিতার দ্বিতীয় পর্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এ. কে. আজাদ।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন সংগঠনটির প্রচার ও যোগাযোগ সম্পাদক কাজী মোয়াজ্জেম হোসেন।

এ সময় সেখানে আরও উপস্থিত ছিলেন অ্যাসোসিয়েশনের সিনিয়র সহসভাপতি মোল্লা মো. আবু কাওছার, যুগ্ম সম্পাদক আশরাফুল হক মুকুল, কোষাধ্যক্ষ দেওয়ান রাশিদুল হাসান, কার্যনির্বাহী সদস্য নাসির উদ্দিন মাহমুদ নান্টু, শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদ, ইয়াসমিন সুলতানা খুকুু, মাহমুদা সুলতানা হেলেন, সালেহা খাতুন স্নিগ্ধা প্রমুখ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে