টাচ নিউজ ডেস্ক: করাপশন ইন মিডিয়া নামের ফেইজবুক পেইজ থেকে প্রকাশিত একটি ভিডিওতে কমেন্ট করে মামালার শিকার হয়েছেন, সংবাদ কর্মী ও জাতীয় পার্টির কর্মী আজমল হক জিতু।

তথ্যসূত্রে জানা যায়,‘করাপশন ইন মিডিয়ার অনুসন্ধান, ট্যাপা দ্যা রেপিস্ট’ শিরোনামে প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনে বলা হয় চাকুরির প্রলোভন দেখিয়ে নারী সাংবাদিকের সাথে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করেছেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সাহিদুর রহমান ট্যাপা। সেই ভিডিও তে মেসেঞ্জারে তাদের কথোপকথনের কিছু প্রমাণও তুলে ধারা হয়।

তবে এ সবকিছুই বানোয়াট দাবি করে ‘করাপশন ইন মিডিয়’ পেইজ ও সেই পোস্টে কমেন্টকারী আজমল হক জিতুসহ ৭ ফেইবুক আইডির নামে মামলা করেন সাংবাদিক শিউলি।

না প্রকাশ অনিচ্ছুক জাতীয় পার্টির এক নেতা জানান, আজমল হক জিতু ওই প্রতিবেদনের সাথে কোনোভাবেই সম্পৃক্ত নয়। শুধুমাত্র শেয়ার বা কমেন্ট করাতে তার সাজা হওয়াটা অনেকটাই বেমানান। যদি সাংবাদিক শিউলির মামলা করতে হয় তবে করাপশন ইন মিডিয়‘র বিরুদ্ধে করুক, এখানে জিতুর কোনো দায় নেই।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে