টাচ নিউজ ডেস্কঃ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের টুর্নামেন্ট সেরার পুরস্কার যেন এক অর্থে নিজের করে নিয়েছেন সাকিব আল হাসান। নিষেধাজ্ঞার কারণে বিপিএলের এক মৌসুম খেলতে পারেননি সাকিব, বাকি ৭ আসরের চারবারই এই পুরস্কার হাতে তুলেছেন। এবারও বিপিএল সেরার পুরস্কার সাকিবের। যদিও এবার ট্রফি না জেতার আক্ষেপে পুড়ছেন তিনি।

রোমাঞ্চকর ফাইনালে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের কাছে ১ রানে হারে সাকিবের ফরচুন বরিশাল। হারের পর টুর্নামেন্ট সেরার পুরস্কার হাতে নিয়ে সাকিব বলেন, ব্যক্তিগতভাবে টুর্নামেন্টটা আমার জন্য বেশ ভালো ছিল। কিন্তু টুর্নামেন্ট সেরা হওয়ার চেয়ে ট্রফিটা উঁচিয়ে ধরতে পারলেই আমার কাছে বেশি ভালো লাগত।

তিনি বলেন, ক্রিকেটের জন্য দারুণ এক ম্যাচ ছিল, দুই দলই ভুল করেছে। তবে শেষ পর্যন্ত কুমিল্লা নার্ভ ধরে রেখেছিল। কৃতিত্ব তাদের দিতেই হবে। সৈকত আলি দারুণ এক ইনিংস খেলেছে। তার নিজের জন্য দারুণ একটা ম্যাচ ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আমরা চূড়ান্ত ফল অর্জন করতে পারিনি।

গোটা টুর্নামেন্টে ব্যাট হাতে ১১ ম্যাচে ২৮৪ রানের পাশাপাশি বল হাতে ১৬ উইকেট সাকিবের। এই অলরাউন্ডার রান খরচেও ছিলেন বেশ কৃপণ। তার এমন পারফরম্যান্স দলকে ফাইনালে তুলতে রেখেছে দারুণ ভূমিকা। ফাইনালে কুমিল্লার কাছে ম্যাচে হারতে হয়েছে ১ রানে। বলা যায় বরিশালের হাল একাই ধরেছিলেন সুনীল নারাইন। ২৩ বলে খেলেন ৫৭ রানের বিধ্বংসী ইনিংস। পরে বল হাতে মাত্র ১৫ রান দিয়ে নেন ২ উইকেট।

হারের কারণ ব্যাখ্যায় সাকিব বলেন, সুনীলের অমন ইনিংসের পরও আমরা ভালোভাবে কামব্যাক করি। এই পরিস্থিতি তৈরি করার জন্য বোলারদের কৃতিত্ব দিতেই হবে। টুর্নামেন্টজুড়েই তারা অসাধারণ শেষের ২-৩ ওভার বল করা অত সহজ না। ওই ওভারের জন্য সুনীলকে কৃতিত্ব দিতে হয়। এরপর আমাদের আরও শক্তভাবে ফিরতে হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে