দরবেশ নিজাম: যে ক’টি খাত মূল চালিকাশক্তিরূপে দেশে অর্থনীতিতে বিশেষ অবদান রেখে চলেছে তারমধ্যে জনশক্তি রপ্তানি খাতটি অন্যতম বলে মন্তব্য করেছেন সিলেট এন্টারপ্রাইজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম আর ডালিম। তিনি গতকাল টাচ নিউজের সাথে এক একান্ত আলোচনায় এ মন্তব্য করেন। তিনি আরও বলেন, প্রবাসীদের পাঠানো রেমিটেন্সে যেমন জিডিপি প্রবৃদ্ধিকে ধরে রাখছে, অনুরূপভাবে জনশক্তি রপ্তানি দেশের বেকারত্ব নিরসনেও সহায়ক ভূমিকা পালন করে আসছে। দেশের প্রধান রপ্তানিখাত তৈরি পোশাক শিল্পসহ অন্যান্য উত্পাদন শিল্পে যে নেতিবাচক প্রভাব পরিলক্ষিত হচ্ছে তা কাটিয়ে উঠতে সরকারকে জনশক্তি রপ্তানির দিকে অধিক নজর দিতে হবে। ইতোমধ্যে বর্তমান সরকারের শ্রম ও প্রবাসী কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় নতুন নতুন উদ্যোগ গ্রহণের মাধ্যমে বহির্বিশ্বে জনশক্তি রপ্তানির ক্ষেত্রে যে নতুন নতুন দ্বার উন্মোচন করছে, তা যে কোন উপায়ে ধরে রাখতে হবে। স্বল্পমূল্যে জনশক্তি রপ্তানি গতিকে ত্বরান্বিত করতে সরকারি নীতিমালার মাধ্যমে বেসরকারি রিক্রুটিং এজেন্টগুলোকে পরিচালনার পাশাপাশি পরস্পরকে সহযোগিতা, সমস্যা সমাধানে সমঝোতা ও সকলকে নমনীয় পথ অবলম্বন করে দেশের স্বার্থে জনশক্তি রপ্তানি প্রক্রিয়াকে বেগবান করতে হবে। এতে একদিকে আমাদের বিদেশি সাহায্যের উপর নির্ভরশীলতা যেমন কমবে, তেমনি দেশের অর্থনীতি বুনিয়াদ আরো মজবুত ও সুদৃঢ় হবে।
তিনি বলেন, ‘দেশের অর্থনীতিতে প্রবাসীদের যে অবদান, তা সঠিকভাবে স্বীকৃত নয়। হাজার হাজার কোটি টাকা প্রবাসীকল্যাণ ফান্ডে জমা রয়েছে, কিন্তু টাকার অভাবে প্রবাসীর মরদেহ আনা যায় না। এরজন্য দিনের পর দিন অপেক্ষা করতে হয়।’

সরকারের সহযোগিতা পেলে দেশের জনগোষ্ঠীকে দক্ষ জনশক্তিতে পরিণত করতে নিজেদের মেধা, যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগাতে পারবেন প্রবাসীরা। সেজন্য প্রয়োজন সঠিক ও নিরাপদ পরিবেশ। সরকার আন্তরিক হলেই বিনিয়োগ যেমন বাড়বে এদেশে, তেমনি বর্তমান অংকের চেয়েও চার গুণ বেশি রেমিট্যান্স আসবে।’

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে