ছবিঃ সংগৃহীত

টাচ নিউজ ডেস্কঃ চুয়াডাঙ্গার দর্শনা থানার নাস্তিপুরে গ্রামে ঘুমন্ত অবস্থায় হযরত আলী নামে একজনকে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

মঙ্গলবার (২৮ ডিসেম্বর) দিনগত রাত রাত ১টার দিকে এ হামলার ঘটনা ঘটে। পরে তাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়ার কিছুক্ষণ পর রাত পৌনে ৩টার দিকে তার মৃত্যু হয়। হযরত আলী নাস্তিপুর গ্রামের মৃত রইচউদ্দীনের ছেলে।

পুলিশ ও স্বজনরা জানায়, প্রতিদিনের মতো মঙ্গলবার রাতে নিজ শয়নকক্ষে ঘুমিয়ে ছিলেন হযরত আলী। এ সময় তার কক্ষের জানালার ফাঁক দিয়ে গুলি বর্ষণ করে দুর্বৃত্তরা। গুলিবিদ্ধ হয়ে তিনি গুরুতর জখম হলে তাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। হাসপাতালে নিলে রাত ২টা ৫০ মিনিটে তার মৃত্যু হয়।

নিহতের ছেলে তৌফিক হাসান বলেন, নিজ ঘরে নিচে ঘুমিয়ে ছিলের আমার মা ও খাটে ঘুমিয়ে ছিল আমার বাবা। মধ্যরাতে হঠাৎ গুলির শব্দে বাবার ঘরে ছুটে গিয়ে দেখি বাবা গুলিবিদ্ধ হয়ে পড়ে আছে। পরে তাকে উদ্ধার করে মোটরসাইকেল যোগে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিই।

তৌফিকের দাবি, তার বাবা বিজিবির সোর্স হিসেবে কাজ করতেন। হয়তো এ কারণেই তাকে হত্যা করা হয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. সৌরভ হোসেন জানান, মাথার মাঝখানে গুলিবিদ্ধ হয়ে হাসপাতালে আসেন হযরত আলী। কিছুক্ষণ জরুরি বিভাগে রেখে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হলে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে মারা যান তিনি।

দর্শনা থানার ওসি লুৎফুল কবীর জানান, গুলিতে হযরত আলীর মৃত্যু হয়েছে। কি কারণে তাকে হত্যা করা হয়েছে তা এখনো বলা যাচ্ছে না। পরবর্তীতে বিস্তারিত জানানো হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে