আনিছ আহম্মদ হানিফ চাটখিল প্রতিনিধি: নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলার দক্ষিন রামনারায়নপুরে জমি জোরপূর্বক দখল ও তাতে বাধা দিতে গেলে সন্ত্রাসী হামলায়-ভাঙচুর ও লুটপাটের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন করেছে স্থানীয় বাসিন্দারা।

রবিবার(১০ এপ্রিল) বিকেলে দক্ষিণ রামনারায়নপুর রঞ্জন আলী মুন্সী বাড়ীতে এক সাংবাদিক সম্মেলনে অভিযোগ করেন স্থানীয় মোহাম্মদ উল্লাহর ছেলে মনির হোসেন।

সংবাদ সম্মেলনে মনির হোসেন বলেন, গত শনিবার বিকাল ইউনিয়নের চিহ্নিত সন্ত্রাসী আবদুল হাকিম ও খোরশেদ আলম সুমন পিকাপে মাটি এনে আমাদের নিজের দখলীয় জমিনে মাটি ভরাট করতে থাকে, এই অবস্থায় আমার ছোট ভাই আমাদের জমিনে মাটি ভরাট করতে দেখিলে তাদের কে বাধা দেয়।এময় সন্ত্রাসীরা সুমন ভাই কে মারধর করে। ঘটনা শোনার পর আমি আমার চাচা চাচাতো ভাইয়েরা ঘটনার স্থলে গেলে তারা চলে যায়।

পরে রাত আনুমানিক সাড়ে ৮টায় আমিও বাড়ির পুুরুষরা তারাবির নামাজ পড়ার জন্য মসজিদে গেলে সন্ত্রাসী আব্দুল হাকিম (৩০) খোরশেদ আলম সুমন স্থানীয় ও লক্ষিপুরের ৬০-৭০জন সন্ত্রাসীকে নিয়ে লোহার রড, দা, ছেনি, লাঠিসোটা সহ  দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আমাদের মুন্সী বাড়ীর  ঘরসহ মোট ৮টা বসত ঘরে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালায়।

তিনি আরো বলেন, তাদের ভয়ে বাসায় থাকা মা-বোনের বাঁচার জন্য পাশের বাড়ীতে আশ্রয় নেয় এই সুযোগে সন্ত্রাসীরা আমাদের ঘরের আলমিরা ভেঙ্গে নগদ একলক্ষ টাকা স্বর্ন গয়না নিয়ে যায় ।

এক জন ক্ষতিগস্ত সাবেক ব্যাংকার নুরুল আমিন ও তার স্ত্রী অভিযোগ করে বলেন, রাত্রে এশা ও তারাবির নামাজ পড়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি এবং বাড়ির পুরুষ সবাই মসজিদে গিয়েছে এমতাবস্থায় সন্ত্রাসীরা আমার বাড়ির টিনের বাউন্ডারি দেশীয় তৈরি অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে বাউন্ডারি নষ্ট করে‌। আমরা ভয়ে ঘর থেকে বের হইনি। সন্ত্রাসীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি কামনা করছি।

ইউনিয়ন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সোহেল রানা বলেন, সম্পত্তি নিয়ে যাদের সাথে সমস্যা তাদের ক্ষতি করলে একটা কথা ছিল ঐ বাড়ির বাকী অংশীদারদের ঘরে হামলা কেন করেছে? খোরশেদ আলম সুমন কিছু দিন পুর্বে নারী নির্যাতিত মামলার কারা ভোগকারী আসামি। আমরা এলাকা তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করি অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থার জোর দাবি জানাই।

ঐ বাড়ির অন্যান্য ক্ষতিগ্রস্ত মালিকগণ জানান, আবদুল হাকিম এবংখোরশেদ আলম সুমন পাশের উপজেলা থেকে সন্ত্রাসী লোকজন ভাড়া করে নিয়ে এসে রঞ্জন আলী মুন্সী বাড়ীর ৮টা বসত ঘরে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালায়। এই ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তদের নগদ এক লক্ষ টাকা স্বর্নালংকার ও প্রায় পাঁছ লক্ষ টাকার ক্ষতি করে লিখিত অভিযোগকারি বলেন, এই ঘটনায় কয়েক জনকে তারা পিটিয়ে আহত করে, তাদের কে চাটখিল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছে। আমি প্রশাসন কে অনুরোধ করবো সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি লিখিত ভাবে জানান।

এ বেপারে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা গিয়াস উদ্দিন জানান, ঘটনা সত্য থানায় যাচাই করা হবে। অভিযোগের প্রেক্ষিতে আসামীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্তা নেওয়া হবে বলে তিনি সাংবাদিকদের জানান।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে